ধর্ষণে বাধা পেয়ে নারীর লজ্জাস্থানে লোহার রড ঢুকিয়ে দিল যুবক

ধর্ষণে বাধা পেয়ে নারীর ওপর অকথ্য অত্যাচার চালাল বছর ২১ বছরের এক যুবক। শুধু তাই নয়, সেই নারীর লজ্জাস্থানে লোহার রডও ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে হাসপতালে ভর্তি করার পর পরই মৃত্যু হয় তার। ভারতের পাটনার নওবাতপুরে ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার রাতে নওবাতপুরে ৩৫ বছরের এক নারীর ওপর আক্রমণ করা হয়। ধর্ষণে বাধা পেয়ে এরপর সেই নারীর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বছর ২১ বছরের এক যুবক এবং তার সঙ্গী। ধর্ষণে বাঁধা পেয়ে এরপর সেই নারীর যৌনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে দেয় তারা।

জানা গেছে, চিৎকার শুনে আশপাশের বেশ কিছু মানুষ হাজির হলে অভিযুক্তরা চম্পট দেয়। সঙ্গে সঙ্গে তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। তবে সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। সেই নারীর ৪ সন্তান রয়েছে।

তবে তার পরিচিতরাই ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলেও জানিয়েছে পুলিশ। পাশাপাশি মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিস।

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালে দিল্লির রাস্তায় প্যারা মেডিকেলের এক ছাত্রীর উপর অকথ্য নির্যাতন চালায় বেশ কয়েকজন। গণধর্ষণের পর সেই ছাত্রীর যৌনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে, রাস্তায় ছুঁড়ে ফেলা হয়। সেই ঘটনার পর গোটা ভারত জুড়ে প্রতিবাদ শুরু হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১০ ঘণ্টা, ১৪ অক্টোবর, ২০১৭
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/নীল