নামের পাশে নেই কোনো পুরস্কার, আড়ালেই রয়ে যায় তার অবদান

সোমবার ফ্লোরিডার লডারহিলে টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। উড়ন্ত সূচনা এনে দেন তামিম ও লিটন। ১৩ বলে ২১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে ফেরেন তামিম। ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নামেন সৌম্য। যথারীতি ব্যর্থতার পরিচয় দেন তিনি। ৫ রান করেই মাঠ ছাড়েন। পরে লিটনের সঙ্গে এসে যোগ দেন মুশফিক। মিস্টার ডিপেন্ডেবল বিদায় নেন ব্যক্তিগত ১২ রানে।

মুশির বিদায়ের পর মাঠে নামেন সাকিব আল হাসান। অধিনায়ককে নিয়ে দলীয় শত রানের কোটা পার করেন লিটন।তার আগে মাত্র ২৪ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। ব্যক্তিগত ৬১ রানে থামে এ ওপেনারের বিস্ফোরক ইনিংস।৩২ বলে ৩ ছক্কা ও ৬ চারে এ ইনিংস সাজান তিনি।

এরপর সাকিবের সঙ্গে এসে যোগ দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।দুজনের জুটিতে ভালোই এগুচ্ছিল বাংলাদেশ। তবে হঠাৎই ছন্দপতন।দলীয় ১৪৬ রানে ২৪ করে ফেরেন সাকিব। এরপর আরিফুল হককে নিয়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যান মিস্টার কুল। ২৫ বলে দুজনের জুটিতে আসে ৩৮ রান। ২০ বলে ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন মাহমুদউল্লাহ।এ পথে ১ ছক্কা ও ৪টি চার মারেন তিনি। ১৬ বলে ১৮ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন আরিফুল।

১৮৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ডিএল পদ্ধতিতে টাইগারদের কাছে ১৯ রানে হারে রাসেল-ব্রাথওয়েট বাহিনী। তবে এই ম্যাচেও আড়াল থেকেই দলের জন্য মূখ্য ভূমিকা পালন করে গেছেন মি.কুল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পুরো সিরিজেই খেলে গেছেন দায়িত্বের সাথে। রান করেছেন মোট ৮০। যার মধ্যে ২ ম্যাচ ছিলেন অপরাজিত। তাই তার ব্যাটিং গড়ও এই সিরিজে ৮০! কিন্তু তার নামের পাশে নেই কোনো ম্যাচ সেরার পুরস্কার ,নেই কোন পুরস্কার । তবুও তিনিই সেরা। তিনিই বিপদের বন্ধু।

বাংলাদেশ সময়ঃ ১৬১০ ঘণ্টা, ০৬ আগস্ট, ২০১৮
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/আরএম