বিএনপির হামলার ভয়ে ভোটার আসেনি: হাছান মাহমুদ

Muhammad Hasan Mahmud

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ মন্তব্য করে বলেন যে, বিএনপির লোকজন হামলা করবে, এমন আশঙ্কা থেকেই ঢাকা সিটি নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দিতে আসেনি। একইসঙ্গে বলেছেন, উপমহাদেশের মানদণ্ডে ঢাকা সিটিতে সবচেয়ে ভালো ভোট হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি প্রথম থেকেই ইভিএম’র বিরুদ্ধে যেভাবে প্রচারণা চালিয়েছে, তাতে সাধারণ ভোটাররা বিভ্রান্ত হয়েছে। এটি যদি না হতো তাহলে আরও ৮ থেকে ১০ শতাংশ ভোট বেশি পড়তো। এছাড়া তারা প্রথম থেকেই বলেছে যে ‘এই নির্বাচান হচ্ছে আমাদের আন্দোলনের অংশ। আর বিএনপির আন্দোলন মানেই মানুষ জানে ‘জ্বালাও-পোড়াও’।

২০১৪ সালে তারা নির্বাচন বানচাল করার জন্য পাঁচটি ভোটকেন্দ্র জ্বালিয়ে দিয়েছিল। প্রিজাইডিং অফিসারকে হত্যা করেছে। ভোটারকে হত্যা করেছে। সুতরাং তারা যখন ঘোষণা দেয় এই নির্বাচন আন্দোলনের অংশ, তখন মানুষ ‘হাঙ্গামার’ আশঙ্কা করেন। সেই আশঙ্কার করেণেই অনেকে ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে যাননি।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ উল্লেখ করে বলেন, জনসংখার দিক থেকে ঢাকা শহর হচ্ছে পৃথিবীর অন্যতম একটি শহর। সেই শহরে প্রায় ৫৫ লাখ ভোটার আছে। এতো সংখ্যক ভোটারের শহরে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা সহজ কথা নয়। তাই আমি মনে করি সেজন্য নির্বাচন কমিশন ধন্যবাদ পাওয়ার অধিকার রাখে। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা।

সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন। তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাচনে যারা নৌকার বিপক্ষে প্রার্থী হয়েছিলেন তারা আগামীতে দলের সম্মেলনে কোনো পদে প্রার্থী হতে পারবেন না।

এছাড়া আওয়ামী লীগের এ প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রেবেকা সুলতানা, কেন্দ্রীয় সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, বেগম আখতার জাহান, মেরিনা জাহান কবিতা, রাজশাহী-৩ আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী-৪ আসনের এমপি এনামুল হক, রাজশাহী-৫ আসনের এমপি ডা. মনসুর রহমান ও সংরক্ষিত আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত কমিটির এটি প্রথম প্রতিনিধি সভা। সভায় জেলা নেতৃবৃন্দ ও তৃণমূলের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ দুই দিনের সরকারি সফরে বৃহস্পতিবার রাজশাহী এসেছেন। মন্ত্রী সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় যোগ দেন। একই স্থানে বিকালে তিনি রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।