ববিতে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার, মহাসড়ক অবরোধ

সংগৃহীত ছবি

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন তার অনুসারীরা।

গত বুধবার (৩১ জানুয়ারি) রাতে আড়াই ঘণ্টা তারা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

জানা যায়, গত বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বরিশাল শহরের চকবাজার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪র্থ ব্যাচের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা মায়ীদুর রহমান বাকির নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী আল সামাদ শান্তকে টেনে হিছড়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

এর প্রতিবাদে আল সামাদ শান্ত’র অনুসারীরা রাত সাড়ে নয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ঢাকা-পটুয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে। অবরোধের দুই ঘণ্টা পর প্রশাসনের আশ্বাসে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার প্রত্যাহারের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন তারা।

এ বিষয়ে, মার্কেটিং বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী রমজান হোসেন সোহাগ বলেন, চকবাজার থেকে বাকীসহ আরো দশ বারো জন শান্ত ভাইকে মেরে পুলিশের হাতে দেয়। বাকিকে গ্রেফতার করতে হবে ও শান্তকে মুক্তি দিতে হবে। এই দাবিতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটামে সড়ক অবরোধ তুলে নিয়েছি আমরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল কাইউম বলেন, শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ করে পরবর্তীতে আমরা আলোচনা করে ১১টার দিকে অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দোষ কোন শিক্ষার্থী কোন মামলায় আসামি হয়ে থাকলে তারা যেন কোন প্রকার হেনস্তা বা ক্ষতির সম্মুখীন না হয় সে ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দেখবে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন শিক্ষার্থী যদি অন্যায় করে তাহলে প্রশাসন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বরিশালের উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) আলী আশরাফ ভূঁইয়া বলেন, মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করায় উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বরাবরের ন্যায় তারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে অবরোধ তুলে নিয়েছে। শিক্ষার্থীদের সাথে আমরা আলোচনা করে তাদেরকে আশ্বস্ত করেছি পুলিশের কাছে মামলায় যে সমস্ত শিক্ষার্থীদের নামে আছে কিন্তু তারা অপরাধে জড়িত নয় তাদেরকে কোন প্রকার ক্ষতি/হেনস্তার শিকার হবে দিব না। এবং যে সকল শিক্ষার্থীদের দোষী তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার পর থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কোন কমিটি গঠিত হয়নি ৷ আল সামাদ শান্ত এর আগে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত হন৷ শান্ত বর্তমান বরিশাল সিটি মেয়রের খোকন সেরনিয়াবাতের অনুসারী। বর্তমানে তার নামে তিনটি মামলা রয়েছে বলে জানা যায়।