মোদির কৃতজ্ঞতা প্রকাশ শেখ হাসিনার প্রতি

ছবিঃ সংগৃহীত

কোভিড-১৯ জরুরি তহবিলে অনুদান দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মোকাবিলায় কোভিড-১৯ জরুরি তহবিল গঠন করা হয়। ।

সোমবার এক টুইট বার্তায় মোদি বলেন, ‘কোভিড-১৯ জরুরি তহবিলে ১৫ লাখ মার্কিন ডলার অর্থ দেয়ার ঘোষণা দেয়ায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ। গত ১৫ মার্চ সার্ক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক ভিডিও কনফারেন্সে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই তহবিল গঠনের প্রস্তাব করেন। আমাদের ঐক্য ও যৌথ প্রচেষ্টার মাধ্যমে আমরা কোভিড-১৯-এর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে পারব।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন রবিবার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ এশিয়ায় করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় স্বাস্থ্যসংকট মোকাবিলায় সার্ক সচিবালয় বরাবরে মৌখিকভাবে এই তহবিল অনুমোদন করেন। তিনি বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সার্ক সচিবালয় ও ভারত সরকারের বরাবরে করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের ১৫ লাখ মার্কিন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি বিষয়ে নোট ভারবাল পাঠাবে। মন্ত্রী বলেন, এখন এই তহবিলের অর্থ করোনা মোকাবিলায় ব্যয় করা হবে। কিন্তু পরে এ অঞ্চলের জনগণের অন্যান্য স্বাস্থ্যঝুঁকি মোকাবিলায় এ তহবিলের অর্থ খরচ করা হবে।

গত ১৫ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ডাকে দক্ষিণ এশিয়ার সার্ক জোটভুক্ত দেশের নেতারা করোনা সংকট মোকাবিলায় এক ভিডিও কনফারেন্সে মিলিত হন। ঐ বৈঠকে উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে নরেন্দ্র মোদি সব সদস্য দেশের অংশগ্রহণে জরুরি তহবিল গঠনের আহ্বান জানান। ভারত সরকার এই তহবিলে ১০ মিলিয়ন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বাংলাদেশ ইতিমধ্যে এই তহবিলে ১ দশমিক ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কিন্তু ভাইরাস প্রতিরোধে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা- সার্কের জরুরি তহবিলে কোনো অর্থ দিচ্ছে না পাকিস্তান।

সম্প্রতি সার্ক (দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা) নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক ভিডিও কনফারেন্সে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই তহবিল গঠনের প্রস্তাব করেন। ভারত প্রাথমিকভাবে এই তহবিলে এক কোটি মার্কিন ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

এই তহবিলে নেপাল ও আফগানিস্তান ১০ লাখ মার্কিন ডলার করে, মালদ্বীপ দুই লাখ ডলার এবং ভুটান এক লাখ ডলার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।