সারাদেশে ১৬১ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন, র‍্যাবের ৪৪২ টহল দল

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে র‍্যাবের ৪৪২টি টহল দল মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে রাজধানীতে কাজ করছে র‌্যাবের ১৪৬ টহল দল। এ ছাড়া সারাদেশে ১৬১ প্লাটুন বিজিবি (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) মোতায়েন করা হয়েছে। এরমধ্যে ঢাকা ও আশপাশের জেলায় মোতায়েন করা হয়েছে ২২ প্লাটুন বিজিবি।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকালে এ তথ্য জানান র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান এবং বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম।

র‍্যাব কর্মকর্তা কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, ‘যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে নিরাপত্তা প্রদানে দেশের বিভিন্ন স্থানে দূরপাল্লার গণপরিবহন ও পণ্যবাহী পরিবহনকে র‍্যাব টহলের মাধ্যমে স্কট প্রদান করে নিরাপদে গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দিচ্ছে র‍্যাব।’

এছাড়া যেকোনো ধরণের নাশকতা ও সহিংসতা প্রতিরোধে বাসস্ট্যান্ড, রেলস্টেশনসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহে র‍্যাবের গোয়েন্দারা ছদ্মবেশে নজরদারি অব্যাহত রেখেছে।

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় মহাসমাবেশ পণ্ড হওয়ার প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল দেয় বিএনপি। এরপর আট দফায় অবরোধ কর্মসূচি পালন করে দেড় যুগ ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকা দল বিএনপি।

ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ সকাল ছয়টা থেকে সারাদেশে বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর ২৪ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে। এর আগে বুধবার সকাল ৬টা থেকে সারাদেশে ২৪ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি চলে। বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টা অবরোধের সময় শেষ হওয়ার পরই হরতাল শুরু হয়। সরকারের পদত্যাগ, নির্দলীয় সরকারের অধীন নির্বাচন এবং বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ গ্রেপ্তার নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং হয়রানি বন্ধের দাবিতে এ কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে।

বিএনপির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে মহাসমাবেশের চার-পাঁচ দিন আগে থেকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত ১৭ হাজার ১০ জনের বেশি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় সারাদেশে দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৪৩৫টির বেশি মামলা হয়েছে।