‘নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘাত ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ’ :মির্জা ফখরুল

‘নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘাত ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ’ :মির্জা ফখরুল
ফাইল ছবি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘাতময় পরিস্থিতি ‘ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ’। তিনি আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় দলের সাবেক মহাসচিব প্রয়াত ব্যারিস্টার সালাম তালুকদারের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল আলোচনায় এই মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে দেখুন যেহেতু আওয়ামী লীগের জনগণের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই, জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। এ জন্যে এখন নির্বাচিত প্রতিনিধি বলতে তারা যা বুঝাচ্ছে সেই ধরনের লোকগুলো আওয়ামী লীগের, তাদের সঙ্গে প্রশাসনের সম্মুখ যুদ্ধ শুরু হয়েছে। শুধু একটি জায়গা না, শুধু বরিশাল না। ইতিপূর্বে অনেক জায়গায় আমরা দেখেছি যে, প্রশাসনের সঙ্গে আওয়ামী লীগের যারা দায়িত্বে আছেন তাদের একটা সংঘর্ষ হচ্ছে, সংঘাত হচ্ছে। এটা একটা লক্ষণ যে, বাংলাদেশ বর্তমানে রাষ্ট্র হিসেবে যে ব্যর্থ হচ্ছে তার এটা লক্ষণ এটা।’

এই অবস্থায় থেকে উত্তরণে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, ‘আমাদের নেতা নির্বাসিত অবস্থায় বহু দূরে অবস্থান করছেন। আমাদের নেত্রী এখনো পর্যন্ত বন্দি। তাকে মুক্ত করা, নেতাকে দেশে ফিরিয়ে আনা, দেশে একটা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠি করার লক্ষ্যে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে।’

এসময় এনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, ‘করোনা সময়ে তাদের ব্যর্থতার কারণে করোনাকে এখনো মোকাবিলা করা সম্ভব হয়নি। আজকে অর্থনীতি নিচের দিকে যাচ্ছে। মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে না, মানুষ দরিদ্র থেকে আরও দরিদ্র হচ্ছে এবং অর্থনীতি আরও ধীরে ধীরে রসাতলের দিকে যাচ্ছে।’

‘ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদার স্মৃতি সংসদ’র উদ্যোগে এই সভায় স্মৃতি সংসদের সভাপতি ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ও স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস প্রমুখ।