তাবলিগ জামাতের ৩৫ জন সদস্যের মধ্যে ২৭ জনের দেহেই মিলেছে করোনা ভাইরাস।

তাবলীগ জামাতের সদস্যরা।

তাবলিগ জামাতের ৩৫ জন সদস্যের মধ্যে ২৭ জনের দেহেই মিলেছে করোনা ভাইরাস। পাকিস্তান তাবলিগ জামাতের মারকাজ রাইউইন্ডের ৩৫ জন মুসল্লির করোনা পরীক্ষা করা হলে তাদের মধ্যে ২৭ মুসল্লির রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর এসব লোকদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডনের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

ডনের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ৫০০ বিদেশিসহ প্রায় ১২০০ লোক তিন দিন, ৪০ দিন এবং চার মাসের জামাতে বের হওয়ার আগে মারকাজে ৫ দিনের একটি ধর্মীয় সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন। মারকাজের বাইরে খোলা জায়গায় তাবু ফেলে অবস্থান করছেন তারা।

এর আগে পাঞ্চাব সরকার করোনার সংক্রমণের কথা জানিয়ে ধর্মীয় নেতাদের এই সম্মেলন স্থগিত করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। কিন্তু ধর্মীয় নেতারা তাতে কর্ণপাত করেননি। পরবর্তীতে তারা যখন চারদিন আগে সম্মেলন স্থগিতের ঘোষণা দেন তখন ওই অঞ্চলে লকডাউন চলছিল। যার কারণে যারা সেখানে অংশ নিয়েছিলেন তারা আর ফেরত যেতে পারেননি।

এদিকে, কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশের পর সেখানকার এক ব্যক্তি পুলিশ কর্মকর্তাকে ছুরিকাঘাত করে। এরপর পুলিশ অনুমতি নিয়ে মারকাজ ঘিরে রেখেছে। তিন দিন থেকে সেখানে কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না এবং কাউকে বের হতে দেয়া হচ্ছে না।

পরে থাইল্যান্ডের অনুরোধে সেখানে থাকা ৫০ থাই নাগরিককে করোনা টেস্ট নেগেটিভ আসায় বিশেষ বিমানে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মারকাজে থাকা সকলকে টেস্ট করা হচ্ছে, কারো করোনা শনাক্ত হলে পার্শ্ববতীয় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হচ্ছে।