করোনাভাইরাসের সামনে অসহায় বিশ্ব

ছবিঃ সংগৃহীত

মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের দোর্দন্ড প্রতাপে অসহায় বিশ্ব যেন কাঁদছে। কোনো কিছুতেই বাগ মানানো যাচ্ছে না। স্বাভাবিক জীবনযাপন থেকে শুরু করে সব সামাজিক, অর্থনৈতিক কর্মযজ্ঞ বন্ধ রেখে কারফিউ লকডাউন পালন করেও কাজ হচ্ছে না। এক দেশ, দুই দেশ, দশ দেশ থেকে শুরু করে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস এখন গোটা বিশ্বকে গ্রাস করছে। বিজ্ঞানীরা আত্মরক্ষার নিশ্চিত কোনো ওষুধ আবিষ্কার করতে না পারায় মানুষ চরম অসহায় অবস্থার মুখোমুখি। বিভীষিকা সামনে রেখে তাদের শুধুই ঘরবন্দি জীবন কাটাতে হচ্ছে। অনবরত মৃতু্য আর ঘায়েল হতে থাকায় প্রতিটি দিন ও রাত হয়ে উঠেছে শোক আর আতঙ্কের। এরইমধ্যে এক লাখ ছাড়িয়ে গেছে মৃত্যুর সংখ্যা৷ সব শেষ হিসাব অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত গোটা পৃথিবীতে করোনার বলি হয়েছেন ১ লাখ ৯০ জন৷ আক্রান্তের সংখ্যা ১৬,৩৮,২১৬৷ তবে মোট আক্রান্তদের মধ্যে ৩,৬৯,০১৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন৷

আমেরিকাতেই প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন৷ শুক্রবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৪,৭৭,৯৪৪৷ মৃতের সংখ্যা ১৭,৯০৯৷ স্পেনে আক্রান্ত হয়েছেন ১,৫৭,০৫৩ জন, সেখানে মৃত্যু হয়েছে ১৫,৯৭০ জন মানুষের৷ ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১৮,৮৪৯৷ করোনায় বিপর্যস্ত ফ্রান্সও৷ সেখানে মৃতের সংখ্যা ১২ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে৷ এদিকে করোনায় লাফিয়ে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে ব্রিটেনেও। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৯৫৮ জন। আক্রান্ত ৭০ হাজারের বেশি। ইরানে করোনায় আক্রান্ত ৬৮ হাজারের বেশি। মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৪ হাজার।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ইতিমধ্যে বিশ্বের ১৮০ টির বেশি দেশে এখন পর্যন্ত ছড়িয়েছে। বিশ্ব জুড়ে চলছে মৃত্যু মিছিল৷ তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ভয়াবহ মন্দার আতঙ্ক৷ করোনার গ্রাস থেকে কবে মুক্তি পাওয়া যাবে, সেই অপেক্ষাতেই বিশ্ববাসী৷

তবে গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে সর্বপ্রথম এই ভাইরাস ছড়িয়ে পরলেও দেশটি ইতিমধ্যে নিয়ন্ত্রণে এনেছে বলে জানিয়েছে। ওয়াল্ডওমিটার ।