বিদেশে বড় অংকের সহায়তা কমাচ্ছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী জনসন

Boris Johnson

গ্রেট ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বন্ধ করে দিচ্ছেন বিদেশে বড় অংকের সহায়তা। করোনাকালে অর্থনৈতিক সংকট কিছুটা মেটাতেই এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন তিনি।

তবে এই সহায়তা বন্ধের বিষয়টি সাময়িক। জানা গেছে, করোনা সংকটের ২১০ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয়ের কিছুটা মেটাতে বিদেশে ৫ মিলিয়ন পাউন্ড সহায়তা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বরিস জনসন।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর ব্রিটেন উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সহায়তার জন্য দেশটির মোট জিডিপির শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ সহায়তা করে। গত বছর দেশটিতে বিদেশি বিভিন্ন রাষ্ট্রকে ২১৫ মিলিয়ন পাউন্ড সহায়তা করেছে।

বিভিন্ন দেশের উন্নয়নে সহায়তার ক্ষেত্রে ব্রিটেনের সুনাম রয়েছে। সহায়তার এই অর্থ গরিব দেশগুলোতে সরাসরি দিয়ে থাকে ব্রিটেন সরকার। তবে সম্প্রতি ভারত ও চীনে সহায়তার এই অর্থের পরিমাণ বেড়ে গেছে, যা ব্রিটেনে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। এ অবস্থায় বিদেশে সহায়তার পরিমাণ কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন বরিস জনসন।

জানা গেছে, ২০১৮ সালে চীনে ব্রিটেনের সহায়তার অর্থ ১১.৭ মিলিয়ন পাউন্ড থেকে বেড়ে দাঁড়ায় ৫৫.৬ মিলিয়ন পাউন্ড। আর ভারতে ৪.৯ মিলিয়ন পাউন্ড থেকে বেড়ে দাঁড়ায় ৯৫ মিলিয়ন পাউন্ডে।

সমালোচকরা উল্লেখ করেছেন যে, উভয় দেশই ব্রিটেনের কাছ থেকে সহায়তা পাচ্ছে আবার মহাকাশ কর্মসূচিও বিকাশ করছে।