মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড় আইডার প্রভাবে মৃত্যু বেড়ে ৪৬

যুক্তরাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড় আইডার প্রভাবে মৃত্যু ৪৬
সংগৃহীত ছবি

বন্যা ও ঘূর্ণিঝড় আইডার প্রভাবে এখন পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ৪৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এমন পরিস্থিতিতে নিউইয়র্ক ও নিউ জার্সির গভর্নররা সেখানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। নিউইয়র্ক সিটির মেয়র বিল ডি ব্লাজিও এই পরিস্থিতিকে বড় ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয় বলে অভিহিত করেছেন। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে সিএনএন।

জানা গেছে, শুধু নিউ জার্সি অঙ্গরাজ্যেই মারা গেছেন ২৩ জন। সেখানকার গভর্নর ফিল মারফি এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, যারা মারা গেছেন তাদের অনেকেই গাড়িতে আটকা পড়েছিলেন। বন্যার পানি বেড়ে যাওয়ায় তারা গাড়ি থেকে বের হওয়ার সুযোগ পাননি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, পাতাল রেল স্টেশনে বন্যার পানি ঢুকছে। পানি ঢুকছে মানুষের বাড়িতেও। ফলে অধিকাংশ পাতাল ট্রেন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাড়ির বেসমেন্টেও আটকা পড়েছেন অনেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের বন্যার পরিস্থিতি নিয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সতর্কবার্তা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে এমন দুর্যোগ মোকাবিলায় অবশ্যই ভালো প্রস্তুতি রাখতে হবে। অনেক ক্ষতি হয়েছে। আমি আমার গভর্নরদের ও জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দিয়েছি। তারা মাঠে থেকে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং যেকোনো সহায়তা করতে প্রস্তুত আছে।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকা বন্যার কারণে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। লুইজিয়ানার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে যে, পানি কমে যাওয়ার পর কয়েক সপ্তাহ লাগতে পারে এই সেবা চালু করতে। ঝুঁকি এড়াতে বিদ্যুৎ সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।