বিক্রয় নিষিদ্ধ ৫ টন আফ্রিকান মাগুর জব্দ

catfish

আজ ফেনীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ৫ টন নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর মাছ জব্দ ও ৪ আড়ৎদারকে জরিমানা করা হয়েছে। আজ বুধবার সকালে ফেনী পৌর মৎস্য আড়তে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফেনী পৌর মাছের আড়তে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ৪টি আড়ৎ থেকে বিক্রয় নিষিদ্ধ ৫ টন আফ্রিকান মাগুর মাছ জব্দ করা হয়। এসব মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে মেসার্স মা মৎস্য আড়তকে ৪ হাজার, পদ্মা জননী ও নোয়াখালী মৎস্য আড়কে ৩ হাজার করে সর্বমোট ১৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পরে জব্দকৃত মাছগুলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহায়ের মাধ্যমে রানীর হাট হিজড়া পল্লী, লালপোল ও রানীর হাট বেদে পল্লী, ধর্মপুর আশ্রয়ন প্রকল্প ও এতিমখানা এবং ভ্রাম্যমাণ ছিন্নমূল ব্যক্তিসহ ২ হাজার ৫ শতাধিক পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো মনিরুজ্জামান জানান, ২০১৪ সালে বাংলাদেশ সরকার প্রোটেশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ রুল ১৯৮৫ এর সংশোধিত ধারায় আফ্রিকান মাগুর মাছের আমদানি, বিপণন ও উৎপাদন নিষিদ্ধ করে। এ প্রজাতির মাছ আমাদের দেশীয় মাছ ও পোনা এবং পুকুরের অন্য সব জীব খেয়ে জীববৈচিত্র ধ্বংস করে।

অভিযানে ফেনী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমিনুল ইসলামসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।