বগুড়ায় শ্যালক-দুলাভাই মিলে স্কুলছাত্রীকে অপহরণ!

Bogura

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় বাল্যবিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণের একমাস পর উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে গাজীপুরের আশুলিয়া উপজেলার জিরাবো এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টার দিকে একটি ভাড়া বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

একই সময় ওই বাসা থেকে স্কুলছাত্রী অপহরণ মামলার প্রধান আসামি তরিকুল ইসলাম (১৯) এবং তাহেরুল ইসলামকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার দুইজন সম্পর্কে শ্যালক-দুলাভাই এবং ধুনট উপজেলার ছোট চিকাশি গ্রামের বাসিন্দা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ছোট চিকাশি গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে স্থানীয় গোসাইবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। একই গ্রামের রোমজান আলীর ছেলে তরিকুল ইসলামের (১৯) সাথে মেয়েটিকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্ত মেয়ের বয়স না হওয়ায় তাকে বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়নি স্কুলছাত্রীর বাবা। এতে মেয়ে পক্ষের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন তরিকুল ও তার পরিবারের লোকজন।

গত ২২ আগস্ট সন্ধ্যার দিকে ওই স্কুলছাত্রী বাবার বাড়ি থেকে প্রতিবেশী চাচার বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়। এ সময় তরিকুল ও তার পরিবারের লোকজন স্কুলছাত্রীকে অটোরিকশায় তুলে অপহরণ করে। এ ঘটনায় পরদিন স্কুলছাত্রীর বাবা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

এদিকে থানা পুলিশ দীর্ঘদিন চেষ্টা করে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করতে পারেনি। ফলে মেয়ের বাবার অভিযোগটি ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার দিকে থানায় মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত করেন। ওই মামলায় তরিকুল ইসলাম ও তার বাবা রোমজান আলীসহ পাঁচ জনকে আসামি করা হয়।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামি তরিকুল ও তাহেরুলকে বৃহস্পতিবার দুপুরের পর আদালতের মাধ্যমে বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। স্কুলছাত্রীর জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে এই মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।