পিঠে সিলিন্ডার বেঁধে হাসপাতালে নেওয়া সেই মা সুস্থ হয়ে ফিরলেন বাড়ি

ফেসবুক সংগৃহীত ছবি

করোনার ভয়াবহতায় দেশে যখন কঠোর লকডাউন তখন সবার নজরে কাড়ে একটি ছবি। করোনায় আক্রান্ত মাকে নিয়ে এক ছেলের হাসপাতালে ছুটে চলা। ছেলের পিঠে সিলিন্ডার বেঁধে মাকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন। আজকের চিত্রটা কিন্তু স্বস্তির। এখন সুস্থ সেই মা। তিনি হাতপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। সুস্থ মাকে নিয়ে বাড়ি ফিরছেন ছেলে। তাইতো সেই মোটরসাইকেলে করেই মাকে নিয়ে তার বাড়ি ফেরার ছবি আবারোও ফেসবুকে ভাইরাল।

আজকের ছবিটিও অনেকে ফেসবুকে শেয়ার করছেন। গতকালের ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া দুটি ছবির একটিতে দেখা যাচ্ছে, হাসপাতালের সামনে ভিক্টর চিহ্ন ‘ভি’ দেখাচ্ছেন ছেলে। মাঝে মা। অন্য পাশে আরেক ছেলে। অন্য ছবিতে দেখা যাচ্ছে, মোটরসাইকেলে করে মাকে নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন ছেলে। ছেলের হাতে এখানেও ভিক্টর চিহ্ন ‘ভি’।

ঝালকাঠি কৃষি ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার জিয়াউল হাসান টিটু বলেন, গত ১৭ এপ্রিল তার মা রেহানা পারভীনের অক্সিজেন সেচুরেশন ৭০ এ নেমে যায়। ওই সময় তার মা করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। হাসপাতালে গত কয়েক দিনের চিকিৎসায় তার মা শারীরিকভাবে সুস্থ হয়ে উঠেন। গতকাল তার মায়ের ফুঁসফুঁসে অক্সিজেন সেচুরেশন হয় ৯৬। বর্তমানে তিনি পুরোপুরি সুস্থ। তাই তার মাকে নিয়ে নলছিটি পৌর শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাড়ি যান তিনি। মাকে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার প্রক্কালে ভিক্টর সূচক ‘ভি’ চিহ্ন দেখান ব্যাংকার জিয়াউল হাসান টিটু।

শের-ই বাংলা মেডিকেলের করোনা তথ্য সংরক্ষক জাকারিয়া খান স্বপন জানান, “করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগী রেহানা পারভীনের ফুঁসফুঁসের উন্নতি হয়েছে। কিন্তু তার দ্বিতীয় দফা করোনা নমূনা পরীক্ষা হয়নি। অর্থাৎ তিনি করোনা পজেটিভ থেকে এখনও নেগেটিভ হননি। এ অবস্থায় আজ সকালে তার ছেলে স্বেচ্ছায় মুচলেকা দিয়ে মাকে নিয়ে গেছেন।” এতে ব্যাংকার জিয়াউল হাসান টিটুর মায়ের মাধ্যমে করোনা ছড়ানোর আশংকা রয়েছে বলে তিনি জানান জাকারিয়া খান স্বপন।