লকডাউনে ক্ষুধার তাড়নায় ৩মাসের দুধের শিশুকে বিক্রি

ক্ষুধার তাড়নায় ৩মাসের দুধের শিশুকে বিক্রি
প্রতীকী ছবি

দেশে সর্বাত্মক লকডাউনে সংসারের অভাব-অনটনের কারণে সন্তানসহ নিজেদের ৩ বেলা খাবার না জোটায় নিজের শিশু কন্যাকে ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছেন এক হতদরিদ্র পরিবার। এ ঘটনাটি ঘটেছে বরিশালের হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের পূর্বকান্দি গ্রামে।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে সর্বাত্মক লকডাউনে কাজ হারিয়েছেন শিশুটির বাবা মো. মোসলেম সরদার। কাজ না থাকায় অভাবের তারনায় ৩ মাসের কন্যাশিশুকে গত ২১ জুলাই বিক্রি করেন মা-বাবা।

শিশুটির মা আলোমতি শিশু বিক্রির বিষয়ে বলেন, “আমার সন্তান বিক্রি করিনি পালতে দিয়েছি।” পরে আলোমতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “আমার স্বামী একজন জেলে গত কয়েক মাস নদীতে কোন মাছ নেই। এই মহামারীর মধ্যে অন্য কোন কাজও করতে পারছে না। এ জন্য সংসার চালাতে পারছে না। এতো দিন কোথায় ছিল এতো লোক, কেথায় ছিল এত মানবদরদীরা। কই কাউকে তো এর আগে কখনো দেখিনি। কোন চেয়ারম্যান, মেম্বার এসে তো দেখেনি।”

আলোমতি আরও বলেন, “কতো কেঁদেছি না খেয়ে এই তিনটি শিশু বাচ্চা নিয়ে কেউ তো একবারও তাকিয়ে দেখলো না। কোন বাবা-মা কম কষ্টে তাদের সন্তান বিক্রি করে না। আমরা ক্ষুধার তাড়নায় দুধের শিশুটিকে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি।”

ইউপি চেয়ারম্যান মো. তৌফিকুর রহমান সিকদার এ বিষয়ে জানতে চাইলে জানান, “আমি শুনেছি ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে শিশুটিকে বিক্রি করে দিয়েছেন শিশুটির বাবা-মা। শিশুটিকে তার বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে আনার জন্য চেষ্টা চলছে।”

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বকুল চন্দ্র বলেন, “লোকমুখে ঘটনা শুনে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে শিশুটি ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া জন্য বলা হয়েছে।”