না ফেরার দেশে চলে গেলেণ ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ সিনেমার প্রযোজক

ছবিঃ সংগৃহীত

না ফেরার দেশে চলে গেলেন ‘বেদের মেয়ে জোছনা’খ্যাত প্রযোজক মতিউর রহমান পানু। মঙ্গলবার রাত ১১টা ২০ মিনিট উত্তরার নিজ বাসায় তিনি ইন্তেকাল করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

তার মৃত্যু সংবাদটি চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু নিশ্চিত করেছেন।

খসরু জানান, ‘বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন পানু ভাই। তিনি বলেন, পানু ভাই বেদের মেয়ে জোসন, মোল্লা বাড়ির বউ, মনের মাঝে তুমিসহ অসংখ্য চলচ্চিত্রের প্রযোজক এবং প্রখ্যাত পরিচালক ছিলেন তিনি। চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির পক্ষ থেকে তার বিদেহী আত্মার প্রতি সম্মান এবং পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

মতিউর রহমান পানুর জন্ম ১৯৩৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর বগুড়া জেলায়। তিনি বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র পরিচালক ও চলচ্চিত্র প্রযোজক। ১৯৬৪ সালে প্রথমে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। ১৯৭৯ সালে তিনি ‘হারানো মানিক’ ছবিটি পরিচালনা করে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।

পানু ১৯৯০-১৯৯১ সালে ভারতের কলকাতায় ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ ছবিটি নির্মাণ করেন, বছর খানেকের মধ্যেই তার সহকারী তোজাম্মেল হক বকুল বাংলাদেশের পটভূমিতে একই শিরোনামে ছবিটি পুনর্নির্মাণ করেন। ২০০২ সালের শেষ দিকে এসে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘মনের মাঝে তুমি’ ছবিটি । ২০০৫ সালে সালাউদ্দিন লাভলু পরিচালিত ‘মোল্লা বাড়ীর বউ’ ছবিটিও তিনি প্রযোজনা করেন। তার নির্মিত অন্যান্য ছবিগুলো হচ্ছে ‘আপন ভাই, নাগ মহল, নির্দোষ, সাহস, মান মর্যাদা, নির্যাতন, সাথীসহ বেশ কিছু সিনেমা নির্মাণ করেন।

২০০৭ সালের শেষের দিকে পানু আজিজুর রহমান পরিচালিত ‘ডাক্তার বাড়ী’ ও ‘ওরে সাম্পানওয়ালা’ ছবিটি প্রযোজনা করেন।