রাজধানীর পাড়া-মহল্লার নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান ২টা নয়, ৪টায় বন্ধ হবে

shop

মহামারী করোনা প্রভাবে গোটা দেশে বিরাজ করছে অস্থিতিশীল পরিবেশ। রাজধানীর বিভিন্ন পাড়া ও মহল্লায় অবস্থিত নিত্যপণ্যের দোকানগুলো খোলার বিষয়ে নতুন নির্দেশনা জারি করেছে ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। আজ সোমবার বিকালে এই নির্দেশনা জারি করা হয় বলে ডিএমপি সূত্র জানায়।

ডিএমপির নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, আজ মঙ্গলবার থেকে নতুন নির্দেশনা মেনে চলবে নিত্যপন্যের দোকানগুলো। এখন থেকে প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টার পরিবর্তে বিকাল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। নগরবাসী এ সময়ের মধ্যে প্রয়োজনীয় দ্রবাদি ক্রয় করতে পারবেন। তবে স্বীকৃত কাঁচা বাজার ও সুপার শপসমূহ পূর্বের ন্যায় প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। ওষুধের দোকান এবং জরুরি সার্ভিসগুলো এই নির্দেশের আওতায় আসবে না।

হোটেল ও রেস্তোরাঁগুলো ইয়াফতার সামগ্রী বিক্রয় করতে পারবে তবে তা দোকানের ভেতরেই। কোনোভাবেই ফুটপাতে ইফতারের পসরা সাজানো যাবে না।

আজ সোমবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এই নির্দেশনা জারি করে উদ্ভুত এ সংকট মোকাবেলায় মহানগরবাসীর সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করছে।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে এর আগে গত ৭ এপ্রিল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মুদি দোকান সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা, কাঁচাবাজার সন্ধ্যা ৭ পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশনা জারি করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে সব ইউনিটকে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশ অনুসারে, সুপারশপ ও স্বীকৃত কাঁচাবাজারগুলো ভোর ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চালু রাখতে বলা হয়। এরপর নির্দেশ না মানলে রাজধানীর বাজার ও অলিগলির দোকানপাঠ বন্ধ করে দিয়েছিল পুলিশ। সরেজমিনে ওই সময়, পুলিশ সদস্যদের এসময় মোটর সাইকেলে দোকান বন্ধের নির্দেশ দিতে দেখা যায়।

এছাড়া গলির মোড়ের সবজি, ফল ও অন্যান্য ভ্রাম্যমাণ দোকানগুলোও সরিয়ে দিয়েছিল তারা। টহল রত পুলিশ সদস্যরা বলছিলেন, গলির মোড়গুলোতেই বেশি আড্ডা হয়। তাই এগুলোই বন্ধে বেশি জোর দেয়া হচ্ছে।