করোনাঃ সংবাদপত্র বিক্রেতাদের ২০ লাখ টাকা অনুদান দিল বসুন্ধরা গ্রুপ

abdussoban

দেশে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ব্যাপক ভূমিকা পালন করছে দেশের শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ। দিনরাত পরিশ্রম করে মানুষের কাছে যে সকল কর্মীরা সংবাদপত্র পৌঁছে দেন এবার তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বসুন্ধরা গ্রুপ। সংবাদপত্র বিক্রেতাদের (হকার) চারটি সংগঠনের জন্য ২০ লাখ টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেড কোয়াটার্স-১-এ ঢাকা সংবাদপত্র হর্কাস বহুমুখী সমবায় সমিতির সার্কুলেশন ম্যানেজার মো. আবুল কালাম ও সংবাদপত্র হর্কাস কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতির সম্পাদক মো. সাহাবুদ্দিনের হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর।

এসময় বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শাবান মাহমুদ, বাংলাদেশ প্রতিদিন, কালের কণ্ঠ, ডেইলি সানের বিপনন বিভাগের প্রধানগণ ও হকার্স সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ এবং ইস্টওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পক্ষ থেকে সকল হকার ভাইদের ঈদ মোবারক। আর্ত মানবতার সেবায় বসুন্ধরা গ্রুপ শুরু থেকেই কাজ করছে। করোনাকালীন সময় যারা কষ্ট করে পত্রিকা বিক্রি করছে, এই দুঃসময়ে মানুষের কাছে সংবাদপত্র পৌঁছে দিচ্ছে তাদের পাশে আছে বসুন্ধরা গ্রুপ এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। তারই অংশ হিসেবে আজ ২০ লাখ টাকা প্রদান করা হলো। এর আগেও সহায়তা করেছি, আগামীতে আরো করবো।

সংবাদপত্র হকার্স কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতির সম্পাদক মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, হকারদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বসুন্ধরা গ্রুপকে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ।

বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী বলেন, ক্রান্তিলগ্নে আমাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি বসুন্ধরা গ্রুপকে।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রথম থেকেই দেশ ও মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এর অংশ হিসেবে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় হাসপাতাল তৈরিতে স্থাপনা দিয়ে সরকারকে সহযোগিতা করেছে এ শিল্পগ্রুপ। এছাড়া করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ১০ কোটি টাকার চেকও হস্তান্তর করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

এছাড়াও সামরিক চিকিৎসা সার্ভিস মহাপরিদপ্তরকে পিপিই ও মাস্ক, ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক (উত্তর) বিভাগকে মাস্ক, নৌবাহিনীকে মাস্ক, পিপিই ও খাদ্যসামগ্রী, র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‍্যাব) মাস্ক ও খাদ্যসামগ্রী এবং ঢাকা মহানগর পুলিশকে (ডিএমপি) মাস্ক, বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীকে মাস্ক ও পিপিই, রাজধানীর দুস্থ ও নিম্ন আয়ের কয়েক হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা এবং প্রতিদিন ইফতার করানো হচ্ছে পুলিশসহ কয়েক হাজার নিম্ন আয়ের মানুষকে।