অ্যাপসভিত্তিক বাইক চালকদের সড়ক অবরোধ

Biker

বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতি আবারও ভয়ঙ্কর হওয়ার কারণে মোটরসাইকেলে রাইড শেয়ারিং সেবা বন্ধের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন বিভিন্ন অ্যাপসের বাইক রাইডাররা।

আজ বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) বেলা পৌনে ১২টার দিকে ধানমন্ডি ২৭ নম্বরে প্রধান সড়ক বন্ধ করে অবস্থান নেন অর্ধশতাধিক মোটরসাইকেল চালক।

মোটরসাইকেল আড়াআড়ি করে রেখে ২৭ নম্বর প্রধান সড়ক বন্ধ করে দেন চালকরা। এতে পুরো সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তীব্র যানজট সৃষ্টি হয় সড়কের দুই পাশেই। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বিক্ষোভকারীরা রাস্তা ছেড়ে দিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী জানান, করোনা পরিস্থিতি অবনতির কারণে মোটরসাইকেলে যাত্রী চলাচল বন্ধ রয়েছে। এর প্রতিবাদে রাইড শেয়ারিং অ্যাপস উবার-পাঠাওয়ের রাইডাররা রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ করছিলেন।

পরে পুলিশ তাদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দিলে ১০-১৫ মিনিটের মধ্যেই সড়কে আবারও যান চলাচল শুরু হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান ওসি।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. পারভেজ ইসলাম জানান, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে মেরুল বাড্ডা ইউলুপের নিচে দুই পাশে অবস্থান করে বিক্ষোভ করেন রাইড শেয়ারিং অ্যাপসের মোটরসাইকেল চালকরা। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে তাদের সরিয়ে দিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এছাড়া, রাজধানীর অন্যতম ব্যস্ততম সড়ক শাহবাগ মোড়েও মোটরসাইকেল চালকদের অবস্থান নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দুপুর পৌনে একটার দিকে তারা সড়কে অবস্থান নিলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মামুন অর রশীদ বলেন, বেশকিছু অ্যাপসভিত্তিক মোটরসাইকেল চালকরা যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে সড়কে অবস্থান নেন। এতে সাময়িক সময়ের জন্য যান চলাচলে বিঘ্ন হয়।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) সকালে রাইড শেয়ারিং সার্ভিস বন্ধ করার প্রতিবাদে যাত্রাবাড়ী এলাকায় বিক্ষেভ মিছিল করছেন মোটরসাইকেল চালকরা। এ সময় বিপুলসংখ্যক মোটরসাইকেল চালক মিছিল নিয়ে রাস্তায় জড়ো হয়ে স্লোগান দেন।

মোটরসাইকের চালকদের অভিযোগ, রাস্তায় বাস-ট্রাক, সিএনজি, অটোরিকশা সবই চলছে। শুধু রাইড শেয়ারিং বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাইড শেয়ারিং বন্ধ করে তাদের জীবিকা নির্বাহের পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।