লিবিয়ায় বাংলাদেশি হত্যাঃ গ্রেফতারকৃত তিন আসামির ৫ দিনের রিমান্ড

Remand

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যা ও মানবপাচারের ঘটনায় করা দুই মামলায় গ্রেপ্তার তিন আসামিকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। আজ সোমবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত আসামিদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যাদের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে তারা হলেন বাদশা মিয়া, জাহাঙ্গীর মিয়া ও লিয়াকত শেখ ওরফে লিপু। রাজধানীর পল্টন থানায় দায়ের করা দুটি মামলায় এই তিনজনকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। একটি মামলায় আসামি বাদশা মিয়া ও জাহাঙ্গীর আলমকে দশ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়। অন্য একটি মামলায় অপর আসামি লিয়াকত শেখ ওরফে লিপুকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানানো হয়। মহানগর হাকিম বাকী বিল্লাহ পৃথক আদেশে প্রত্যেককে পাঁচ দিন করে রিমান্ডের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত রবিবার গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের হেফাজতে থেকে কয়েকটি পাসপোর্ট, মোবাইল ফোন ও টাকা-পয়সার লেনদেনের কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই আসামিরা মানব পাচারকারী সক্রিয় দলের সদস্য। তারা অবৈধভাবে লিবিয়ায় লোক পাঠিয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে তথ্য প্রমান পাওয়া যাচ্ছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে আরও তথ্য পাওয়া যাবে।

গত ২৮ মে লিবিয়ার সাহারা মরুভ‚মি অঞ্চলের মিজদা শহরে ২৬ বাংলাদেশিসহ ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এতে আহত হন আরও ১১ জন। বাংলাদেশিসহ ওই অভিবাসীদের মিজদা শহরের একটি জায়গায় টাকার জন্য জিম্মি করে রেখেছিল মানবপাচারকারী চক্র। এ নিয়ে ওই চক্রের সঙ্গে মারামারি হয় অভিবাসী শ্রমিকদের। এতে এক মানবপাচারকারী নিহত হয়। এরই প্রতিশোধ নিতে মানবপাচারকারীরা সংঘবদ্ধভাবে হামলা কওে নারকীয় হত্যাকান্ড ঘটায়।