ভাস্কর্য ইস্যু: চক্রান্তকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি

BTA

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে চক্রান্ত ও ভাস্কর্য ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ)। রোববার (১৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ভাস্কর্য হলো ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রতীক। ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্দেশ্য হলো খ্যাতিমান ব্যক্তিদের অবদানকে স্মরণীয় করে রাখা এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরার মাধ্যমে দেশপ্রেম জাগ্রত করা। সারা বিশ্বের মুসলিমদেশসহ প্রায় সব দেশেই কম-বেশি ভাস্কর্য রয়েছে। প্রাচীনকাল থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে।

বক্তারা আরও বলেন, আমরা মনে করি, জাতির পিতার ভাস্কর্যের ওপর আঘাত মানেই আমাদের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপর আঘাত। তাই এদেশের সঠিক ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব সমুন্নত রাখার স্বার্থে ভাস্কর্য নিয়ে চক্রান্ত ও রাতের আঁধারে ভাস্কর্য ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ মো. বজলুর রহমান মিয়ার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক শেখ কাওছার আহমেদের সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির (বিটিএ) উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সিনেট সদস্য বাবু রঞ্জিত কুমার সাহা, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ মো. আবুল কাশেম, আলী আসগর হাওলাদার প্রমুখ।