‘সরকারের অদূরদর্শিতায় ভ্যাকসিন নিয়েও চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে’

mosharof
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

সরকার করোনা নিয়ন্ত্রণসহ সর্বক্ষেত্রে চরমভাবে ব্যর্থ বলে জানিয়েছেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তাদের অদূরদর্শিতায় করোনা ভ্যাকসিন নিয়েও চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। করোনার এই বিপদকালেও সরকারি দলের লোকদের কুকর্মের কারণে দেশের মানুষ অশান্তিতে কাল কাটাচ্ছে। এই বিপর্যয় থেকে দেশ বাঁচাতে গণতান্ত্রিক সরকারের কোনো বিকল্প নেই। আর এই লক্ষ্যে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকারকে হটিয়ে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাধ্য করতে হবে।

শুক্রবার কুমিল্লার দাউদকান্দি সদরে তার বাসভবনে দাউদকান্দি পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে স্থানীয় বিএনপি আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ সব কথা বলেন তিনি।

ড. মোশাররফ হোসেন মতবিনিময় সভায় দাউদকান্দি পৌর মেয়র প্রার্থী নূর মো. সেলিম সরকার ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন। ১৪ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে বিএনপির মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিপুলভোটে বিজয়ী করতে দলীয় নেতা-কর্মীসহ সকলের প্রতি আহবান জানান।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্রহীনতা ও বিচারহীনতার কারণেই আজকে দেশে সর্বক্ষেত্রে মহাবিপর্যয়। বর্তমান সরকার দেশের জন্য একটি বিপর্যয়! বর্তমানে দুর্নীতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে, ঢাকা দক্ষিণের বর্তমান মেয়র সাবেক মেয়রকে প্রকাশ্যে চোর সম্বোধন করছে, আবার সাবেক মেয়র বর্তমান মেয়রকে চোর বলছে! মামলা হয়েছে। সরকার নিরব ভূমিকায়। দেশের মানুষ আজ কোথায় আছে? দেশে স্বৈরতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা চালু থাকায় মত প্রকাশের স্বাধীনতা নেই। মানুষের ভোটাধিকার নেই। তারা সকল গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিয়েছে। দেশের পুলিশকে দলীয় ক্যাডার বাহিনীতে পরিণত করেছে। সরকার ক্ষমতায় বসে যা ইচ্ছে তাই করছে। কোথাও কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। কেউ কারো কথা শুনছে না। এইভাবে একটি দেশ চলতে পারে না।

মতবিনিময় সভায় পৌর বিএনপি’র সভাপতি ও মেয়র প্রার্থী নূর মো. সেলিম সরকার সভাপতিত্ব করেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মো. আক্তারুজ্জামান সরকার, একেএম শামছুল হক, মো.সাইফুল আলম ভূঁইয়া, জসিম উদ্দিন আহমেদ, ভিপি জাহাঙ্গীর আলম, মাহবুবুল হক হিরণ, কেএম কামরুল আহছান, কাউন্সিলর মোস্তাক মিয়া, খন্দকার বিল্লাল হোসেন, শরীফ চৌধুরী ও রোমান খন্দকার প্রমুখ।