মিয়ানমার সীমান্তে অবস্থান শক্তিশালী করেছে বাংলাদেশ: ওবায়দুল কাদের

সংগৃহীত ছবি

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘাতের ফলে সৃষ্ট সমস্যায় সীমান্তে অবস্থান আরো শক্তিশালী করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আমরা সীমান্ত উদারভাবে খুলে দেয়ার পক্ষপাতী নই এবং এ সুযোগ আমরা কাউকে দেব না। মিয়ানমারে সংঘাতে সৃষ্ট উদ্বেগ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে জাতিসংঘকে লিখিতভাবে জানাবে বাংলাদেশ।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে সেতুমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সড়ক পরিবহন সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘাতের সৃষ্ট সমস্যায় সীমান্তে অবস্থান আরও শক্তিশালী করা হয়েছে। আমরা সীমান্ত উদারভাবে খুলে দেওয়ার পক্ষপাতী নই এবং এ সুযোগ আমরা কাউকে দেব না।

মিয়ানমার সংঘাতে সৃষ্ট উদ্বেগ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে জাতিসংঘকে লিখিতভাবে জানাবে বাংলাদেশ। মন্ত্রী বলেন, যারা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন তারা দেশটির সীমান্তরক্ষী, সেনাবাহিনীর সদস্য, পুলিশ ও সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা। মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল, তারা তাদের ফিরিয়ে নেবে এবং নিতেই হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।