বাজারে আসছে নতুন আইফোন

i phone

মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল প্রতিবছরই নতুন কিছু পণ্যের সঙ্গে নতুন আইফোন বাজারে ছাড়ে। চলতি বছরে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে নতুন আইফোন আসতে দেরি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। তবে গুঞ্জন উঠেছে, বাজারে নতুন আইফোন ছাড়তে খুব বেশি দেরি করতে রাজি নয় অ্যাপল। ৮ সেপ্টেম্বরেই ঘোষণা আসতে পারে নতুন আইফোনের। সেপ্টেম্বরে নতুন আইফোনের ঘোষণা দেওয়ার পাশাপাশি অক্টোবরেও আরেকটি অনুষ্ঠান আয়োজন করে নতুন পণ্যের ঘোষণা দিতে পারে অ্যাপল কর্তৃপক্ষ।

অ্যাপলের পণ্য সম্পর্কে তথ্য প্রকাশ করে টুইটারে পরিচিতি পেয়েছে আই হ্যাক টু অ্যাকাউন্টটি। ওই অ্যাকাউন্ট থেকেই অ্যাপলের নতুন পণ্য বাজারে আসার তারিখ ও পরিকল্পনার কথা জানানো হয়েছে। অ্যাপল পণ্য সম্পর্কে তথ্য ফাঁস করে ওই অ্যাকাউন্ট থেকে বলা হয়েছে, অ্যাপল এবারে নতুন আইফোন আনতে জমকালো কোনো আয়োজন রাখছে না।

এবারে ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানে নতুন বছরের নতুন আইফোন বাজারে আনার ঘোষণা দেওয়া হবে। একই সঙ্গে অ্যাপলের ওয়াচ সিরিজ ৬–এর ঘোষণাও আসতে পারে। এরপর ২৭ অক্টোবর আরেক অনুষ্ঠানে আইপ্যাড প্রো ও নতুন ম্যাকবুকের ঘোষণা দিতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। এবারে নতুন ম্যাকবুকে ইনটেলের চিপসেট বাদ দিয়ে নিজস্ব সিলিকন চিপসেট ব্যবহার করতে পারে অ্যাপল।

অ্যাপল সাধারণত প্রতিবছরের সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় মঙ্গলবার নতুন পণ্য ঘোষণার অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকে। এর আগে ২০১৮ সালে সেপ্টেম্বরে আইফোন ও ওয়াচ বাজারে আনার ঘোষণা দেয় অ্যাপল। এরপর আবার অক্টোবরে আইপ্যাড প্রো ও ম্যাকবুক এয়ার আনার ঘোষণা দেয়। এবারও অ্যাপল ওই পথে হাঁটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, এ বছর নতুন আইফোন মডেলকে আইফোন ১২ বলা হতে পারে। ধারণা করা হচ্ছে, আইফোন-১১-এর তুলনায় আইফোন-১২ মডেলের দাম ৫০ মার্কিন ডলার বেশি হবে। এবারে নতুন আইফোন বক্সের সঙ্গে চার্জার বা এয়ারপড পাওয়া যাবে না। নতুন আইফোনে ৫জি সুবিধা ও ওএলইডি স্ক্রিনের কারণে বাড়তি দাম রাখবে অ্যাপল।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই প্রযুক্তিবিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অ্যাপলের নতুন আইফোন ঘিরে নানা তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে। বেশির ভাগ প্রতিবেদনে আইফোনের সঙ্গে চার্জার না পাওয়ার ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক বিশ্লেষণ ও অ্যাপলের সাম্প্রতিক গ্রাহক জরিপেও সে আভাস মিলেছে। অ্যাপলের ৫ দশমিক ৪ ইঞ্চি মাপের নতুন আইফোন ১২ মডেলের দাম হতে পারে ৭৪৯ মার্কিন ডলার।