বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনায় বিশ্বের করুণ অবস্থা

ছবিঃ রয়টার্স

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশ্ব একটি গুরুতর বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য সংকটের মুখোমুখি হচ্ছে এটি কোনও গোপন বিষয় নয়। এটি কেবলমাত্র একটি সম্ভাব্য জনস্বাস্থ্য মহামারীই নয়, এটি বিশ্বব্যাপী সরবরাহ চেন এবং বাজারগুলিতেও উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলছে। ভাইরাসের কারণে লকডাউনের যে অর্থনৈতিক ক্ষতি বিপর্যয় ডেকে আনবেন, এতে এক দশক আগে অর্থনীতির খারাপ সময়ের চেয়েও বিশ্বে আরও কঠিন মন্দা দেখা দিতে পারে।

বিশ্বজুড়ে মহামারি আকারে ছড়ানো করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সরকারগুলো তাদের চেষ্টা আরও জোরদার করেছে। এর অংশ হিসেবে বুধবার পর্যন্ত ৩০০ কোটির বেশি মানুষ লকডাউনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ২০ হাজারের বেশি মানুষ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা সাড়ে ৪ লাখে পৌঁছালে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস হুঁশিয়ার করেন, শুধু সম্মিলিত চেষ্টাই পারে এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে।

এদিকে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এখন পর্যন্ত ২১ হাজার ২০০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। অন্যদিকে এ ভাইরাস যাদের শরীরে শনাক্ত হয়েছে তাদের ১ লাখ ১৪ হাজার ২১৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়া ভাইরাসটি মোট শনাক্ত হয়েছে ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৯০৫ জনের শরীরে। বর্তমানে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৪৮৭ জনের শরীরে এ ভাইরাসের উপস্থিতি রয়েছে। চিকিৎসাধীন এসব মানুষের মধ্যে ৩ লাখ ১৮ হাজার ৬৯৫ জনের অবস্থা স্থিতিশীল এবং ১৪ হাজার ৭৯২ জনের অবস্থা গুরুতর।

ভাইরাসটিতে ইতালিতে মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। সেখানে মারা গেছেন ৭ হাজার ৫০৩ জন। এদের মধ্যে ৬৮৩ জন মারা গেছেন গেল ২৪ ঘণ্টায়। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ হাজার ৩৮৬ জন।

স্পেনে মৃত মানুষের সংখ্যা এখন চীনকে পেছনে ফেলেছে। তিন মাস আগে এই চীনেই প্রথম নভেল করোনাভাইরাসের উৎপত্তি। এখন ইতালির পর সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশ বলা হচ্ছে স্পেনকে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে ১৩ হাজার ৩শ৪৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এতে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৬৮ হাজার ৫শ ৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। করোনা ভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে ২৪৭ জন মারা গেছেন। আর এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২৭ জনে।

যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে, নিউ ইয়র্ক এবং ওয়াশিংটনে করোনা রোগের বিস্তার ঘটেছে বেশি। করোনা ভাইরাস ঠেকাতে ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

করোনাভাইরাস ছড়াচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যেও। ইরানে মারা গেছে ২ হাজার মানুষ। আফ্রিকার মালিতেও পাওয়া গেছে করোনাভাইরাস। বেশ কিছু দেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছে।

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৩৯ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে মারা গেছেন পাঁচজন, সুস্থ হয়েছেন ৭ জন এবং চিকিৎসাধীন ২৭ জন।

জাতিসংঘের মহাসচিব একযোগে নিষেধাজ্ঞা চান

মহাসচিব গুতেরেস বলেন, কোভিড-১৯ বিশ্ব মানবতার জন্য হুমকি এবং সবাইকে এই যুদ্ধে শামিল হতে হবে। তিনি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য ২০০ বিলিয়ন ডলারের আবেদন জানিয়েছেন। গুতেরেস বলেন, ‘বৈশ্বিক কার্যক্রম ও একতা এখনো জরুরি। আলাদাভাবে কোনো রাষ্ট্র যদি ব্যবস্থা নেয়, তা যথেষ্ট হবে না।’