করোনাভাইরাস: বিশ্বজুড়ে জারি থাকবে আপদকালীন পরিস্থিতি

World Health Organization

করোনাভাইরাসের মহামারি চলছে বিশ্বজুড়ে। আর এর জেরে বিশ্বজুড়ে জারি থাকবে আপদকালীন পরিস্থিতি। শুক্রবার এই ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচ্ও) প্রধান টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস। তিনি জানিয়েছেন, জরুরি পরিস্থিতি সংক্রান্ত কমিটির সুপারিশ মেনেই আপদকালীন পরিস্থিতি জারি রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডাব্লিউএইচ্ও।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জেরে গত ৩০ জানুয়ারি বিশ্ব স্বাস্থ্যে আপদকালীন পরিস্থিতি জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তখনও চীনের বাইরে সংক্রমণ সেভাবে ছড়ায়নি। সে সময় চীনের বাইরে করোনার পরীক্ষা করা হয়েছিল ১০ হাজার জনের। সংক্রমিত হন মাত্র ৯৮ জন। কিন্তু ডাব্লিউএইচ্ও-এর সেই ঘোষণার পরও টনক নড়েনি বিশ্বের বহু দেশের।

ফলস্বরূপ আপদকালীন পরিস্থিতি ঘোষণার ৩ মাস পর বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণের সংখ্যাটা ৩২ লক্ষ ছাড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আপদকালীন পরিস্থিতির মেয়াদ বাড়ানো ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না।

ডাব্লিউএইচ্ও এর ডিরেক্টর-জেনারেল বলেন, করোনাভাইরাস এখনও বিশ্ব স্বাস্থ্যে জরুরি অবস্থা। এই ভাইরাস এমন বিপদ ডেকে এনেছে যে বিশ্বের সেরা স্বাস্থ্য ব্যবস্থাও সামাল দিতে পারছে না। এই পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞ কমিটির পরামর্শ মেনেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস নতুন উদ্বেগের কথা জানান।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস আফ্রিকা এবং ল্যাটিন আমেরিকার বহু দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। এই এলাকার বহু দেশে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্বল। এশিয়া এবং ইউরোপের বহু দেশে সংক্রমণের গতি কমলেও আফ্রিকা এবং ল্যাটিন আমেরিকার এই প্রবণতা উদ্বেগের।

তিনি আরও একবার দাবি করেন, এই ভাইরাস মোকাবিলার জন্য যথাসময়ে বিশ্বনেতাদের সতর্ক করেছিলেন তাঁরা। আগেই তিনি জানিয়েছিলেন, বিশ্বের অধিকাংশ দেশ তাঁদের দেওয়া প্রাথমিক সতর্কবার্তা উপেক্ষা করেছে। আর সে কারণেই এই দেশগুলিকে এখন ভুগতে হচ্ছে। যে দেশগুলি এই সতর্কবার্তা মেনে চলেছে, তারা অনেক ভালো জায়গায় আছে।