করোনার ওষুধ সম্ভবত পেয়ে গেছেন, দাবি পাকিস্তানি চিকিৎসকদের

pakistan

করোনায় মৃত্যু ঠেকাতে ওষুধ উদ্ভাবনে বিশ্বজুড়ে তুমুল প্রতিযোগিতা চলছে। এবার কভিড-১৯ এর সম্ভাব্য ওষুধ চিহ্নিত করতে পেরেছেন বলে দাবি করেছেন পাকিস্তানের চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা। দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কেইউ) ডা. পাঞ্জওয়ানি সেন্টার ফর মলেকিউলার মেডিসিন অ্যান্ড ড্রাগ রিসার্চ (পিসিএমডি) এ বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে করোনার ওষুধ নিয়ে গবেষণা শুরু করে।

সম্প্রতি ‘জার্নাল অব বায়োমলেকিউলার স্ট্রাকচার অ্যান্ড ডাইনামিক’ এ ওই গবেষণার ফল প্রকাশ করা হয়। তাতে বলা হয়, রেমডেসিভির, স্যাকুয়েনাভির, ডারুনাভির এবং আরো দুটি প্রাকৃতিক উপাদান কভিড-19 এর সম্ভাব্য ওষুধ।

রেমডেসিভির ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও করোনার ওষুধ হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া জাপানসহ ইউরোপীয় অনেক দেশ এ ওষুধটি প্রয়োগ শুরু করেছে। ফলে পাকিস্তানের ডাক্তাররাও এ ওষুধের সম্ভাব্যতা যাচাই শুরু করে। তাতে সাফল্য পাওয়া যায়।

ইতিপূর্বে পাকিস্তানের দাও ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়ান্সেস (ডিইউএইচএস)এর বিশেষজ্ঞরাও করোনার একটি সম্ভাব্য ওষুধ তৈরি করেছেন বলে দাবি করেন। এদিকে পাকিস্তানকে মানুষের ওপর টিকার পরীক্ষা নিরীক্ষা চালানোর ব্যাপারেও পরামর্শ দিয়েছে চীন ও জাপান। পকিস্তানে করোনা আক্রান্ত রোগী ইতিমধ্যে বেড়ে হয়েছে ১৯ হাজার ৯১২ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ৫৯০ জন এবং মারা গেছেন ৪৬২ জন।