শ্মশানে মৃতদেহের শরীর থেকে কাপড় খুলে বিক্রিই তাদের ব্যবসা!

সংগৃহীত ছবি

করোনায় শ্মশানে মৃতদেহের শরীর থেকে কাপড় খুলে সেগুলো ধুয়ে ও ইস্ত্রি করে একটি চক্র বিক্রি করতো। এ চক্রটি মৃতদের দেহের পোশাক, এমনকি সরিয়ে নিতেন গায়ের সাদা চাদরও। তারপর সেগুলোতে এক বিশেষ ব্র্যান্ডের স্টিকার লাগিয়ে দোকানে দোকানে পৌঁছে দিতেন। দোকানিরা প্রতিদিনের সংগ্রহ পিছু টাকা দিতেন। গত ১০ বছর ধরে ভারতের যোগীরাজ্যে এভাবেই রুজি-রুটি চালাচ্ছিল একটি চক্র। করোনার দাপটে ফুলেফেঁপে উঠেছিল তাদের ব্যবসা।

রবিবার পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের বাগপতের এলাকা থেকে এই চক্রের সাতজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা মৃতদেহের পরনের জামা-কাপড় ও অন্যান্য জিনিস চুরি করত। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

সার্কেল কর্মকর্তা অলোক সিং জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা মৃতদেহের বিছানার চাদর, শাড়ি, জামা চুরি করত। তাদের কাছ থেকে ৫২০টি বিছানার চাদর, ১২৭টি কুর্তা, ৫২টি শাড়ি এবং একাধিক জামা উদ্ধার হয়েছে। গত কয়েক দিনে যেখানে মৃতদেহের স্তূপ জমা করে রাখা হয়েছিল সেখানকার মৃতদের শরীর থেকে খুলে নেওয়া হয়েছিল।

পরে, সেগুলো ধুয়ে ও ইস্ত্রি করে গ্বয়ালিয়রের একটি কোম্পানির লেবেল লাগিয়ে বিক্রি করত তারা। এলাকার কাপড় ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও অভিযুক্তদের যোগাযোগ ছিল বলে পুলিশের ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, আটককৃতদের মধ্যে তিন জন একই পরিবারের। গত ১০ বছর ধরে চুরির চক্র চালাচ্ছে তারা। চুরির ধারা ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে মহামারি আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদ সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা