ভারতীয় নৌবহরে যুক্তরাষ্ট্র অত্যাধুনিক দু’টি এমএইচ-৬০রোমিও মাল্টিরোল কপ্টার দিলো

এমএইচ-৬০রোমিও মাল্টিরোল কপ্টার
ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

ভারতের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরো শক্তিশালী করতে এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দিল্লির হাতে দু’টি অত্যাধুনিক এমএইচ-৬০রোমিও মাল্টিরোল হেলিকপ্টার (এমআরএইচ) তুলে দিল। ভারত সরকার দেশটির নৌবাহিনীর জন্য মার্কিন সংস্থা লকহিড মার্টিনকে ২৪০ কোটি ডলারে ২৪টি বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন এই হেলিকপ্টার তৈরির ক্রয়াদেশ দিয়েছিল ভারত। তারই প্রথম দু’টি হেলিকপ্টার শুক্রবার সান দিয়েগোর মার্কিন নৌবাহিনী ঘাঁটি এনএএস নর্থ আইল্যান্ডে ভারতের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

আনুষ্ঠানিকভাবে হেলিকপ্টারগুলি ভারতের হয়ে গ্রহণ করেন আমেরিকায় নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সান্ধু। নথি বিনিময় করেন মার্কিন সেনাবাহিনীর পক্ষে ভাইস অ্যাডমিরাল কেনেথ হোয়াইটসেল এবং ভারতের পক্ষে ভাইস অ্যাডমিরাল রবনীত সিং। অনুষ্ঠানে মার্কিন নৌবাহিনীর কর্তারা ছাড়াও লকহিড মার্টিনের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে সান্ধু বলেন, এই হেলিকপ্টারগুলোর অন্তর্ভুক্তি ভারত-মার্কিন প্রতিরক্ষা সহযোগিতার ক্ষেত্রে মাইলস্টোন হিসেবে চিহ্নিত হবে। ট্যুইটে সান্ধু লেখেন, ‘ভারত-মার্কিন বন্ধুত্ব গগনস্পর্শী হয়েছে। গত কয়েক বছরে দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা বাণিজ্য দু’হাজার কোটি ডলার ছাপিয়ে গিয়েছে। বাণিজ্যের পরিধি ছাপিয়ে দুই দেশ এখন যৌথভাবে প্রতিরক্ষা উৎপাদন শুরু করেছে।’ ভারতে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সংস্কারের ফলে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে সুযোগ আরো বেড়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।

সব ঋতুতে কর্মক্ষম হেলিকপ্টারগুলোতে অ্যাভিওনিক্স প্রযুক্তি রয়েছে। শক্তিশালী সেন্সর ব্যবস্থা থাকায় রোমিও হেলিকপ্টারগুলো আরো নিখুঁতভাবে কাজ করতে সক্ষম হবে বলে প্রতিরক্ষা কর্তারা দাবি করেছেন।

হেলিকপ্টারগুলোতে ভারতের বিশেষ প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে। এগুলোর অন্তর্ভুক্তির ফলে থ্রি-ডাইমেনশনাল আঘাত হানতে সক্ষম নৌবাহিনী। ভারতের সাথে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা চুক্তি করেছে আমেরিকা। ওই চুক্তির জন্যই এই অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার হাতে পেল দিল্লি। এগুলো ব্যবহারের জন্য ইতিমধ্যে আমেরিকায় নৌবাহিনীর বাছাই করা কর্মীদের প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে।

সংবাদ সূত্রঃ হিন্দুস্তান টাইমস