আগৈলঝাড়ায় ক্ষুধার্ত ও নির্যাতিত সেই বৃদ্ধার পাশে প্রশাসন

barisal

ক্ষুধার্ত এক বৃদ্ধা খাবার ও বয়স্ক ভাতার টাকা ফেরত চাওয়ায় বরিশালের আগৈলঝাড়ায় সোমবার বিকেলে পুত্রবধূর নির্যাতনের শিকার হয়। এমন এক সংবাদ মঙ্গলবার দৈনিক অনলাইন সংস্করণে প্রকাশ হলে পুলিশ প্রশাসনের নজরে আসে। সংবাদ দেখে আগৈলঝাড়া থানার ওসি মো. আফজাল হোসেন মঙ্গলবার বিকেলে বৃদ্ধার জন্য খাবার নিয়ে ছুটে যান তার বাড়িতে। থানায় মামলা দায়ের আসামি গ্রেপ্তার।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রত্নপুর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামের মৃত সূর্যকান্ত সরকার মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী জ্ঞানদা রানী (৯৫) ছেলে জগদীশ সরকারের সাথে থাকেন।

দরিদ্র পরিবার হওয়ায় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জ্ঞানদা রানীকে একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেওয়া হয়। তিনি ৩ মাস পর পর বয়স্ক ভাতার টাকা উত্তোলন করে পুত্রবধূ শিখার কাছে জমা রাখেন। সোমবার বিকেলে ক্ষুধার্ত জ্ঞানদা রানী পুত্রবধূ শিখা রানীর কাছে খাবার ও বয়স্ক ভাতার টাকা চাইতে গেলে শিখা শাশুড়িকে অমানুষিক শারীরিক নির্যাতন করে গুরুতর আহত করে।

ওসি মো. আফজাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমি সংবাদ পেয়ে বৃদ্ধার বাড়ি গিয়ে তার খাবার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করি। এ ঘটনায় বৃদ্ধার জামাতা চিত্তরঞ্জন সরকার এর ছেলে চন্দন সরকার বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়ের পরে শিখা রানীকে মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেপ্তার করে বুধবার সকালে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।