বরগুনায় চিরকুট লিখে কিশোরের আত্মহত্যা

Suicide

বরগুনার তালতলী উপজেলার হড়িনখোলা গ্রামে চিরকুটে ‘মারিয়া আমার জান’ লিখে জোবায়ের হোসেন রিয়াজ (১৪) নামে এক কিশোর গাছের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

আজ রোববার (০১ নভেম্বর) সকালে উপজেলার হড়িনখোলা গ্রামে নিজ বাড়ির তেঁতুল গাছ থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

রিয়াজের বাবার নাম কামাল মুন্সী। সে স্থানীয় তালুকদারপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল। পরিবার সূত্রে জানা যায়, শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরের দিকে রিয়াজ বাসা থেকে বের হয়ে তালুকদারপাড়া স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যায়। এরপর রাত হয়ে গেলেও আর বাসায় ফেরেনি। সকালে রিয়াজের খোঁজে প্রাইভেট মাস্টারের কাছে যাওয়ার সময় নিজ বাড়ির সামনে তেঁতুল গাছের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তাকে দেখা যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। এ সময় মরদেহের সঙ্গে একটি চিরকুট পাওয়া যায়। চিরকুটে লেখা রয়েছে ‘মা আমাকে ক্ষমা করে দিও, আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ি নয়। মারিয়া আমার জান’। তবে এই মারিয়া কে? সে তথ্য এখনো জানা যায়নি।

রিয়াজের মা জেসমিন বলেন, আমার ছেলে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে মানসিক সমস্যায় ভুগছিল। সময় মতো খাওয়া-দাওয়াও করতো না। কথাও বলতো না। জানতে চাইলে বলতো- আমার স্বাস্থ্য ভালো না। রিয়াজের সঙ্গে কোনো মেয়ের সম্পর্ক ছিল কি-না তা আমাদের জানা নেই। মারিয়া মেয়েটা কে তাও জানি না।

তালুকদারপাড়া মাধ্যমকি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে সাত-আটজন মারিয়া রয়েছে। এদের মধ্যে কোন মারিয়া তা বলা যাচ্ছে না। তবে রিয়াজের সহপাঠীদের সঙ্গে আলোচনা করে জানা যাবে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরের মরদেহ বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। মরদেহের সঙ্গে একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। চিরকুটটি দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে এ আত্মহত্যা করে থাকতে পারে। তবে এটি আত্মহত্যা না পরিকল্পিত হত্যা তা তদন্ত করে জানার চেষ্টা চলছে।