দেশের সাহিত্য সম্পাদনার ইতিহাসে অবিস্মরণীয় নাম আবুল হাসনাত

hasnat

না ফেরার দেশে চলে গেছেন প্রখ্যাত সাহিত্য সম্পাদক, কবি, চিত্রসমালোচক ও বাংলা একাডেমির ফেলো আবুল হাসনাত। তার মরদেহে বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

রোববার (১ নভেম্বর) ধানমন্ডির বেঙ্গল শিল্পালয় প্রাঙ্গণে বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির কর্মকর্তা এস এম জাহাঙ্গীর কবীর, মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, পিয়াস মজিদ, স্বকৃত নোমান ও মোজাফ্ফর হোসেন।

এর আগে সাহিত্যিক ও সম্পাদক আবুল হাসনাতের প্রয়াণে বাংলা একাডেমির পাঠানো শোকবার্তায় বলা হয়, ‘আবুল হাসনাত বাংলাদেশের সাহিত্য সম্পাদনার ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় নাম। গণসাহিত্য, দৈনিক সংবাদ-এর সাহিত্যসাময়িকী এবং সর্বশেষ সাহিত্য-মাসিক ‘কালি ও কলম’ সম্পাদনায় তিনি অনন্য রুচি, মেধা এবং অসামান্য সাফল্যের স্বাক্ষর রেখেছেন।

তার চিত্র-সমালোচনায় যেমন ছিল উল্লেখযোগ্য স্বাতন্ত্র্য তেমনি ‘মাহমুদ আল জামান’ নামে তিনি কবিতা ও শিশু-কিশোর সাহিত্যের জগতেও ছিলেন নিবিষ্ট। ১৯৭১ সালে ত্রিপুরা ও পশ্চিমবঙ্গে অবস্থানকালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সাংস্কৃতিক লড়াইয়েও তিনি পালন করেছেন বিশেষ ভূমিকা।

বাংলা একাডেমির সঙ্গে আবুল হাসনাতের ছিল সুদীর্ঘকালের সংযোগ। একাডেমি থেকে তার সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়েছে ‘নানা রবীন্দ্রনাথের মালা’, ‘ঢাকা ১৯৭১ এলবাম’ এবং ‘শামসুর রাহমান রচনাবলি’। বাংলা একাডেমি আবুল হাসনাতের প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করছে এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি জ্ঞাপন করছে আন্তরিক সমবেদনা। ’