মধ্যরাতে গুজবে কেঁপে উঠল বাংলাদেশের অনেক গ্রামাঞ্চল

ছবিঃ সংগৃহীত

করোনাভাইরাস নিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে বেশ কিছু গুজব। এতে জনমনে আতঙ্ক বাড়ছে । ফেসবুকের মত সামাজিক মাধ্যমে চোখ রাখলেই প্রতিদিন এমন গুজব চোখে পড়ে। তেমনি মধ্যরাতে কেঁপে উঠল বাংলাদেশের অনেক গ্রামাঞ্চল। দেওয়া হলো মাইকে আযান, বাজানো হলো শঙ্খ, গাওয়া হলো কীর্তন। ঘুমে অচেতন মানুষগুলো কিছু বুঝে ওঠার আগেই হতভম্ব। ছুটলেন দিকবিদিক। ছড়িয়ে পড়লো নানান গুজব। কেউ বললেন করোনা ভাইরাস আসছে, কেউ বললেন ভূমিকম্প হবে, কেউবা বলছেন আকাশ থেকে পাথর পড়বে। কেউ কেউ বলে বেড়ালেন আকাশ একদিকে নেমে যাবে, পৃথিবী আজই ধ্বংস হবে। এরই মধ্যে একজোট মানুষ বেড়িয়ে পড়লেন মিছিলে।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) ভয়াবহ এমন সব বিভ্রাট তথ্যের তাণ্ডব চলল রাত ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত। জল যখন বেশি দূর আর গড়ালো না তখন অনেকের সহজ স্বীকারোক্তি- যা হবার হয়ে গেছে।

গতরাতে আমাদের প্রতিনিধি রাকিবুল ইসলাম এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেঘনা উপজেলার চন্দনপুর গ্রামের একজন বাসিন্দা বলেন, একটি ছোট শিশু নাকি স্বপ্নে আজান দিয়ে নফল নামাজ আদায় করতে বলেছে। যখন তার কাছে প্রশ্ন করা হলো আপনি তা নিজে দেখেছেন কিনা তখন তিনি সহজভাবে বললেন তিনি এমনটি দেখেননি।

এদিকে আরো একটি গুজব ছড়িয়ে পরে যে, জন্মের ৫ মিনিট পর এক শিশু বলেছে আদা, লং, গোলমরিচ ও কালোজিরা দিয়ে চা বানিয়ে খেলে মরণঘাতী করোনাভাইরাস হবে না। এ কথা বলার পরপরই শিশুটি মারা যায়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে এমন কথা ছড়িয়ে পড়েছে উত্তরের বিভিন্ন এলাকায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও ছড়িয়ে পড়েছে এ কথা। এ নিয়ে শুরু হয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা। কেউ বলছেন শিশুটি বগুড়ায় জন্ম নিয়েছে, আবার কেউ বলছেন রংপুরে, কেউবা বলেছেন নীলফামারী-লালমনিরহাটের কথা।

তবে ওই এলাকার সচেতন অনেকেই এসবের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। তারা আরও বলেছেন, সোশ্যাল মিডিয়ার গুজবে কেউ কান দিবেন না,অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না। নিজে সচেতন হোন এবং অন্যকে সচেতন করুন।

উল্লেখ্য কিছুদিন পূর্বেও থানকুনি পাতা খেলে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি মিলবে এমন গুজব দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল। যা জনসাধারনের মাঝে এমনভাবে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিলো যে তা সহজেই বিশ্বাস করার মত।