মাদারীপুরে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যার চেষ্টা, অতঃপর…

police lover

কথায় বলে প্রেমে বিশ্ব জয় করা যায় কিন্তু প্রেম যখন হয়ে দাড়ায় মৃত্যুর কারন এমনই এক ঘটনা ঘটেছে মাদারীপুর সদর থানার এক নারী এসআই এর সাথে। তার সাথে পরিচয় গোপন করে প্রেমের সম্পর্ক করে জাকির হোসেন নামের এক যুবক। পরে ওই যুবকের আসল পরিচয় জানতে পেরে ভেঙ্গে যায় প্রেমের সম্পর্ক। এরপর ক্ষিপ্ত হয়ে হত্যার উদ্দেশে হামলা করে সেই এসআই’র উপরে। এ ঘটনায় দীর্ঘদিন আত্মগোপনে থাকার পর গ্রেফতার করা হয়েছে সেই ‘ ভয়ঙ্কর প্রেমিককে’। বিষয়টি নিয়ে মাদারীপুর পুলিশ সুপার সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

আজ মঙ্গলবার বিকালে মাদারীপুর জেলা পুলিশ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মাহবুব হাসান জানান, গত ৫ এপ্রিল রাতে মাদারীপুর সদর মডেল থানার শিক্ষানবিস মহিলা সাব-ইন্সপেক্টর কর্মস্থল থেকে মাদারীপুর পুলিশ লাইন্স ব্যারাকে যাবার পথে তাকে তার পূর্ব পরিচিত জাকির হোসেন কৌশলে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় আঘাত করে পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতারে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসা দেয়া হয়। এই ঘটনায় আহত এসআইর ছোট ভাই বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশ ঘটনার ৪২ দিন পরে সোমবার রাতে ঢাকার সাভার থেকে জাকিরকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরো জানান, জাকির বিবাহিত হলেও এই পরিচয় গোপন করে সে প্রতারণার মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করে এবং সে নিজেকে কখনও রনবীর কখনও বাতেন নামে পরিচয় দিতো। গ্রেফতারকৃত জাকির গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা থানার শিমুলবাড়ি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলেও জানান তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) আব্দুল হান্নান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান ফকির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ বদরুল আলম মোল্লাসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মী।