সচল হলো বেনাপোল বন্দরের আমদানি-রপ্তানি

Benapole Land Port

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রভাবে দীর্ঘ ৭৬ দিন পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশের বৃহত্তম বাণিজ্যক কেন্দ্র বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে পুনরায় সচল হয়েছে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য।

আজ রোববার (৭ জুন) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে দুই দেশের মধ্যে এ বাণিজ্য শুরু হয়। এছাড়া আমদানি-রপ্তানি শুরু হওয়ার প্রথম দিনে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে ২৪টি পণ্যবোঝায় ট্রাক।

এর আগে করোনা সংক্রমণ রোধে গত ২২ মার্চ এ পথে বেনাপোল বন্দরের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ করে দেয় ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চালু করতে বন্দর কর্তৃপক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ভারতীয় চালকরা যাতে পোর্টের বাইরে যেতে না পারেন, সে ব্যাপারে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, করোনার কারণে দীর্ঘদিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকায় অনেক লোকশান গুণতে হয়েছে তাদের (ব্যবসায়ী)। তবে বাণিজ্য কার্যক্রম পুনরায় চালু হওয়ায় কিছুটা হলেও ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন তারা।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাবে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে দীর্ঘ ৭৬ দিন ধরে এ বন্দর দিয়ে বন্ধ ছিল আমদানি-রপ্তানি। করোনার ক্রান্তি সময়ে স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য নির্দেশনা মেনে রোববার বিকেল থেকে আমদানি-রপ্তানি শুরু হয়েছে। ফলে স্বস্তি ফিরেছে ব্যবসায়ীদের মধ্যে।

বেনাপোল কাস্টমস সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা শামিম হোসেন বলেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ে আশঙ্কা থাকায় সীমান্ত অতিক্রমের আগেই ট্রাক চালকদের শারীরিক অবস্থার পরীক্ষা করা হচ্ছে। এছাড়া দুই দেশেই ট্রাকগুলোকে স্যানিটাইজ করা হবে। ফেরার সময়ও চালকদের শারীরিক পরীক্ষা করা হবে। সেই সঙ্গে দ্রুত পণ্য খালাস করে দিনের মধ্যেই ফিরে যাবে ট্রাকগুলো।

শামিম হোসেন আরও বলেন, যে সমস্ত পণ্য ভারত থেকে আমদানি করা হচ্ছে, কাস্টমস কর্তৃপক্ষ তার কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ করছে। পরে শুল্ক পরিশোধ করে খালাস দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, দেশের সরকার অনুমোদিত ২৩টি স্থলবন্দরের মধ্যে চলমান ১২টি বন্দরের অন্যতম বেনাপোল স্থলবন্দর। এ বন্দর থেকে ভারতের কলকাতা শহরের দূরত্ব ৮৩ কিলোমিটার। মাত্র তিন ঘণ্টায় একটি পণ্যবাহী ট্রাক আমদানি পণ্য নিয়ে পৌঁছাতে পারে কলকাতা শহরে। তেমনি একই সময় কলকাতা থেকে পণ্যবাহী ট্রাক পৌঁছায় বেনাপোল বন্দরে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়াতে এ পথে ব্যবসায়ীদের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে প্রবল আগ্রহ রয়েছে। প্রতিবছর এ বন্দর দিয়ে প্রায় ৮০ হাজার মেট্রিক টন পণ্য আমদানি হচ্ছে। যা থেকে সরকার প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয় করে থাকে।