গরমে ঠাণ্ডা লেগেছে ?, জেনে নিন কি করবেন

Sick

সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন প্রতিটি মানুষেরই কাম্য থাকে। সুস্থ থাকতে হলে সঠিক নিয়মে জীবন পরিচালনা করা অত্যন্ত প্রয়োজন। এই গরমে, গরম থেকে বাঁচতে ঠাণ্ডা পানি পান করে বা রাতে দীর্ঘক্ষণ ফ্যান বা এসি চালিয়ে রেখে অনেকেরই ঠাণ্ডা লেগে যাচ্ছে। হচ্ছে সর্দি-জ্বর-গলাব্যথা কাশির সমস্যা।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, এগুলো মূলত ভাইরাসজনিত রোগ। একে তো মহামারি করোনার সময় পার করছি আমরা। আর করোনার উপসর্গও জ্বর- কাশি-গলা-শরীর ব্যথা। এজন্য আবহাওয়া পরিবর্তনের সময় এ ধরনের রোগ থেকে নিরাপদে থাকতে প্রয়োজন বিশেষ সতর্কতা:

যা করতে হবে

# শিশুসহ বাসার সবাইকে অবশ্যই বারবার হাত ধুতে হবে।

# বাইরে গেলে মাস্ক পরতে হবে।

# হাঁচি কাশির সময় টিস্যু ব্যবহার করা ও অন্যের থেকে দূরে যেতে হবে।

# ঠাণ্ডা পানি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দিয়ে ইনফেকশন সৃষ্টিতে সাহায্য করে।

# বেশি ঠাণ্ডা পানি পান করা যাবে না, ফ্যান বা এসি-তে বেশি ঠাণ্ডায় থাকা যাবে না।

# শিশুদের ঘাম যেন শরীরে না শুকায় সেদিকে বিশেষ নজর দিতে হবে। বার বার শরীর মুছে দিতে হবে।

# ধুলা-ধোঁয়া, বেশি গরম বা বেশি ঠাণ্ডা এবং ঘরে কার্পেট, তোষক, পর্দা ইত্যাদিতে জমে থাকা ধুলা থেকে সাবধান থাকতে হবে।

# গলাব্যথার সঙ্গে জ্বর ও ঢোঁক গিলতে সমস্যা হলে হালকা গরম পানিতে অ্যান্টিসেপটিক মাউথ ওয়াশ এর সঙ্গে এক চিমটি লবণ দিয়ে দিনে দুই-তিনবার গড়গড়া করতে হবে।

এসবের সঙ্গে আদা-চা, লেবু-চা খাওয়া যেতে পারে। এছাড়া হালকা গরম পানিতে মিশিয়ে মধু খাওয়া যায় এবং সেই সঙ্গে চিকেন স্যুপ খেলে ভালো। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল লেবু, কমলা, আমলকি, আমড়া প্রভৃতি খেতে পারেন। এ সমস্যা প্রতিরোধে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল সাহায্য করে।

করোনাকালে মামুলি উপসর্গকেও উপেক্ষা নয়, আর অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ গ্রহণ করবেন না।