বেকারত্বের জ্বালায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে কিডনি বিক্রির আবেদন

Rafiqul Hasan

মানব জীবনে বেকারত্ব এমন একটি সমস্যা যা জীবনে বয়ে আনে অনিশ্চয়তা ও অপারগতার মত মানুষিক চাপ। সেই মানুষিক চাপ থেকে মানুষ এমন কিছু কাজ করে ফেলে যা তার দ্বারা আশা করা যায় না। ভারতে দীর্ঘদিন ধরে বেকারত্ব বয়ে বেড়াচ্ছেন এক যুবক। সেই জ্বালায় ন্যায্য দামে কিডনি বিক্রি করতে চেয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর আবেদন জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করলেন এক ভারতীয় যুবক। তিনি লেখেন, ‘সম্মানীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী, বেকারত্বের জ্বালা আর নিতে পারছি না। আমি আমার একটা কিডনি বিক্রি করতে চাই। আমার কিডনিটি ন্যায্য মূল্যে বিক্রির ব্যবস্থা করলে কৃতজ্ঞ থাকব।’

জানা গেছে, আবেদনকারী এই ভারতীয় যুবকের নাম রফিকুল হাসান। তার বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার খড়িবাড়ি এলাকায়। যুবকের দাবি, শিক্ষিত হওয়া সত্ত্বেও তিনি দীর্ঘদিন ধরে চাকরি পাচ্ছেন না।

তাই হতাশ হয়ে ওই ‍যুবক কিডনি বিক্রি করতে চেয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন। রফিকুল হাসান স্বীকার করলেন, হতাশা থেকেই (ওই পোস্ট) করে ফেলেছি। অনেকদিন ধরে কাজের চেষ্টা চালাচ্ছি। কিন্তু কোনও কিছুই হচ্ছিল না। স্নাতক হওয়া সত্ত্বেও দীর্ঘদিন কর্মহীন রয়েছি।

কিন্তু, কিডনি বেচার ভাবনা এল কেন? মিডিয়ার এমন প্রশ্নে রফিকুল বললেন, মানুষ তো একটা কিডনি নিয়েও বাঁচতে পারে। তাই, একটা বেচে দিলেও আমি বেঁচে যাব। হ্যাঁ, তখন মাঠে গিয়ে হয়ত কোদাল ধরার ক্ষমতা থাকে না। কিন্তু, ‘জব কার্ড’-এর সাহায্যে কাজ করতে পারব। তবে এ বিষয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় বা রাজ্য সরকারের সঙ্গে কোনওরকম যোগাযোগ করেননি রফিকুল।