বাড়তে পারে নদ-নদীর পানি, বন্যার শঙ্কা

Lalmonirhat

হঠাৎ বৃষ্টিপাত বেড়ে যাওয়ায় দেশে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। বুধবার (২৪ জুন) নাগাদ সেই শঙ্কা আরও বাড়তে পারে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বন্যা পূর্বাভাস সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুজ্জামান ভূইঁয়া জানিয়েছেন, ব্রক্ষপুত্র-যমুনা নদ-নদীসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টায় স্থিতিশীল থাকতে পারে।

বাড়ছে গঙ্গা-পদ্মা নদ-নদীসমূহের পানিও, যা অব্যাহত থাকতে পারে আগামী ৭২ ঘণ্টা।

এদিকে চারদিন টানা ভারী বৃষ্টিপাতের পর শনিবার থেকে বর্ষণ কমায় দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদীসমূহের পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে। কুশিয়ারা ব্যতীত অন্যান্য প্রধান নদীসমূহের পানি সমতল হ্রাস পাওয়ার প্রবণতা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর ও ভারত আবহাওয়া অধিদপ্তরের বরাত দিয়ে পাউবো জানিয়েছে, আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ও মেঘালয় প্রদেশে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আছে। ফলে, এ সময়ে ব্রক্ষপুত্র নদ এবং দেশের উত্তরাঞ্চল ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রধান নদীসমূহের পানি সমতল দ্রুত বৃদ্ধি পেতে পারে।

উত্তরাঞ্চলের ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেলেই দেশের অর্ধেকের বেশি জেলা বন্যায় প্লাবিত হয়। আর জুনের শেষ থেকেই শুরু হয় দেশে বন্যার মৌসুম। এক্ষেত্রে ভারতের পাহাড়ী অঞ্চলে বর্ষণ গেলে চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে উত্তর ও উত্তর পূর্বাঞ্চলের নদ-নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে।

ইতোমধ্যে তিস্তা, ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার কাছাকছি উচ্চতায় প্রবাহিত হতে শুরু করেছে। এতে উত্তরাঞ্চলের বেশ কিছু জেলায় কৃষিজমি প্লাবিত হয়েছে। জুনে স্বপ্লমেয়াদী বন্যার পূর্বাভাস আগেই দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।