দুদক থেকে কোনো অভিযুক্তকে ফোন দেওয়া হয় না

Anti-Corruption Commission

দুদকের ভুয়া কর্মকর্তা-কর্মচারীর পরিচয় দিয়ে প্রতারণায় নেমেছে এক বা একাধিক সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র। এসব চক্র বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ দাবি বা আদায় করছে। এমন অসংখ্য অভিযোগ পাওয়ার পর এ বিষয়ে জনসাধারণকে সতর্ক থাকার কথা জানিয়েছে দুদক।

আজ সোমবার দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, ‌‘অভিযোগকারী ব্যক্তিরা বলছেন, তাদের নামে কমিশনে কল্পিত অভিযোগ রয়েছে অথবা কমিশনের বিবেচনাধীন কোনো অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার কথা বলে টেলিফোনে অথবা মোবাইল ফোনে অনৈতিক আর্থিক সুবিধা দাবি করছে। দুদক কোনো ব্যক্তির একক অভিপ্রায় অনুসারে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার অথবা অভিযুক্ত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কমিশন অনুসন্ধান বা তদন্ত সংক্রান্ত সব ধরনের যোগাযোগ টেলিফোন বা মোবাইল ফোনে নিষিদ্ধ করেছে।

কমিশনের এ সংক্রান্ত সব যোগাযোগ কেবল লিখিত পত্রের মাধ্যমেই করা হয়। টেলিফোন বা মোবাইল ফোনে অভিযুক্ত বা অভিযোগসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগের কোনো প্রশাসনিক ও আইনি সুযোগ নেই।’ এসব প্রতারকের কিছু সদস্যকে ইতঃপূর্বে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অনেকের বিরুদ্ধে মামলা বিচারাধীন।

এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার পাশাপাশি প্রতারকদের সম্পর্কে তথ্য থানা অথবা র‌্যাব কার্যালয় অথবা দুদকের পরিচালক (গোয়েন্দা) মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলীর মোবাইল ০১৭১১-৬৪৪৬৭৫ নম্বর এবং দুদক পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্যের মোবাইল নম্বর ০১৭১৬-৪৬৩২৭৬ এ জানাতে অনুরোধ করেছে সংস্থাটি।