সরকার সময়মতো লকডাউন না দেওয়ায় করোনা পরিস্থিতির অবনতি: বিএনপি

Lockdown

সরকার স্বাস্থ্য সেবায় চরম দুর্নীতি এবং মহামারি করোনা চিকিৎসা নিয়ে যে ভয়াবহ দুর্নীতি করেছে তার ফলে আজকে করোনায় চিকিৎসা ও প্রতিরোধ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রোববার (১১ এপ্রিল) বিএনপির আরও দাবি, সরকার সময়মতো লকডাউন ঘোষণা না করে পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে সাহায্য করেছে।

লকডাউন ঘোষণা করার পরও গণপরিবণ চালু করা, শপিংমল, দোকানপাট খুলে দেওয়া এবং গার্মেন্টস চালু রাখা প্রমাণ করেছে যে সরকারের সিদ্ধান্তহীনতা ও সমন্বয়ের অভাবে জনগণের জীবন ও জীবিকা বিপন্ন হয়ে পড়েছে। অবিলম্বে চিকিৎসার জন্য জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতাল তৈরি করা, যথেষ্ট পরিমানে বেড, অক্সিজেন সরবরাহ, আইসিইউ এবং ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানায় বিএনপি।

শনিবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ বিষয়ে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দিন আনে দিন খায় মানুষ, মাঝারি, ছোট কল কারখানার শ্রমিক, রিকশা-ভ্যান শ্রমিক, গণপরিবহন শ্রমিক, কৃষক এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক (ছোট ও ক্ষুদ্র) উদ্যোক্তদের ভাতা দিতে হবে।

সভায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জলবায়ু বিষয়ক বিশেষ দূত জন কেরির ঢাকা সফর নিয়ে আলোচনা হয়।

সভায় সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চ ডুবে যাওয়ায় প্রায় ৩৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করা হয়।

সভায় সম্প্রতি ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় সংঘটিত ঘটনায় প্রায় ১১টি মামলায় ১৭ হাজার মানুষকে আসামি করায় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে সালথা থানায় নির্যাতন চালানোর তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানানোর পাশাপাশি নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানানো হয়।