সৌদিতে গ্রেফতার চার ‘করোনা ভাইরাসকে আল্লাহর শাস্তি’ বলায়

ছবিঃ আল-জাজিরা

করোনা ভাইরাস এক ভয়াবহ মহামারীর নাম। প্রতিনিয়ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই সংক্রমণ ভাইরাস। বিশ্বে এ পর্যন্ত ২৭ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন করোনা ভাইরাসে। সংক্রমন হওয়ায় সামাজিক দূরত্ব তৈরি করেছে মানুষ। বেশিরভাগ মানুষই লকডাউন হয়ে ঘরে আবদ্ধ হয়ে আছে। ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বন্ধ আছে কল-কারখানা, অফিস-আদালত। এক কথায় বলতে গেলে পৃথিবীর মানুষের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডই থামিয়ে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এমনি চলতে থাকলে দুর্ভিক্ষ পর্যন্ত হতে পারে গোটা বিশ্বে। তবে করোনা ভাইরাস বিশ্বের মানব সভ্যতার জন্য হুমকি হয়ে এলেও প্রকৃতির জন্য আশীর্বাদই নিয়ে এসেছে।

এদিকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আল্লাহর শাস্তি, এমন দাবি করে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় চার ব্যক্তিকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে সৌদি আরব। ইতিমধ্যে ওই চার ব্যক্তি গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির পাবলিক প্রসিকিউশন টুইটারে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানায়, সামাজিক মাধ্যমে করোনা নিয়ে বিভ্রান্তিকর পোস্ট দেওয়ায় তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে।

সৌদির পাবলিক প্রসিকিউশন আরো জানায়, এক ভিডিও বার্তায় করোনাসংকট নিয়ে বিদ্রূপ এবং বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দেওয়া ব্যক্তিকেও গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের নাম প্রকাশ হয়নি। তবে দেশটির সামাজিম মাধ্যমে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের পরিচয় নিয়ে জল্পনা চলছে।

ধারণা করা হচ্ছে, গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে একজন প্রখ্যাত কোরআন তেলাওয়াতকারী খালেদ আল- শাহরি। যিনি এক ভিডিও বার্তায় বিপর্যয় এবং মহামারীকে আল্লাহর শাস্তি বলে উল্লেখ করেছেন।

তবে তার অনুসারীরা বলেছেন,এই ভিডিও বার্তা দুই বছর আগের।

এছাড়া ধারণা করা হচ্ছে গ্রেফতার হওয়া আরেক ব্যক্তির নাম ইব্রাহিম আল-দুওয়াইশ, যিনি দেশটির একজন ধর্মপ্রচারক। গত বৃহস্পতিবার তিনি সামাজিক মাধ্যমে করোনা ভাইরাস নিয়ে বিতর্কিত পোস্ট করেছেন বলে অভিযোগ উঠে।

গ্রেফতার হওয়া আরেক ব্যক্তি খালেদ আবদুল্লাহ, তিনি করোনা নিয়ে বিভ্রান্তি কর টুইটারে পোস্ট করেন বলে অভিযোগ। তবে গ্রেফতার হওয়া চতুর্থ ব্যক্তি সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

এখন পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ২০৩ জন, মারা গেছে ৪ জন। দ্য নিউ আরব।