শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্যঃ ইবির প্রক্টর মাহবুবসহ ৩ শিক্ষককে দুদকে তলব

Islamic University

শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) তিন শিক্ষককে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।আগামী রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মো. মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিমকে দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে তাদের বক্তব্য প্রদানের জন্য বলা হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক ও অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা মো. আব্দুল মাজেদ স্বাক্ষরিত প্রেরিত চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে। এর আগে বাংলাদেশ প্রতিদিনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘুষ বাণিজ্য নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন ছাপা হয়। সূত্র জানায়, এ প্রতিবেদনের সূত্র ধরে তদন্তে নামে দুদক।

দুদকের চিঠিতে বলা হয়েছে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিম এর বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বক্তব্য গ্রহণ একান্ত প্রয়োজন।

অনুসন্ধান প্রতিবেদন দাখিলের জন্য মো. আব্দুল মাজেদকে অনুসন্ধানী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়, ১, সেগুনবাগিচা, ঢাকায় উপস্থিত হয়ে বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য বলা হয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এসএম আব্দুল লতিফ জানান, এমন একটি চিঠি দপ্তরে এসেছে। যে সকল শিক্ষককে হাজির হতে বলা হয়েছে ইতোমধ্যে আমরা তাদের বরাবর চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছি। তবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মো. মাহবুবর রহমানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই।

সম্প্রতি কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্য নিয়ে সাবেক প্রক্টর ড. মো. মাহবুবর রহমানসহ কয়েকজন শিক্ষকের জড়িত থাকার অভিযোগে বাংলাদেশ প্রতিদিন সহ কয়েকটি মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকায় সাবেক প্রক্টর মাহবুবর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ পাঠান।