শিক্ষাগত যোগ্যতায় দেশের কোন অভিনেতার দৌড় কতদূর

Actor-actress

তারকারা অভিনয়, মেধা আর সৌন্দর্য দিয়ে যা ফুটিয়ে তোলেন, তাদের বাস্তব জীবনে অনেক ক্ষেত্রেই এর মিল পাওয়া যায় না। চলচ্চিত্রে অনেক সময় গ্র্যাজুয়েট বা পিএইচডি হোল্ডারের ভূমিকায় অভিনয় করে থাকেন। কিন্তু ব্যক্তিগত জীবনে তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা কি পর্দার চরিত্রের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ? নানা রকম প্রেক্ষাপট থেকে উঠে আসা মানুষেরা মিডিয়া চলচ্চিত্রে জগতে এসে তারকা হয়ে উঠেছেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ উচ্চশিক্ষিত, কেউবা কলেজেই পড়ালেখার পাট চুকিয়েছেন। তারকাদের কার পড়ালেখার দৌড় কতদুর, তা নিয়ে ভক্ত-দর্শকদের রয়েছে ব্যাপক কৌতূহল।

প্রয়াত হুমায়ুন ফরীদি কোথায় পড়াশোনা করেছেন? যারা টুকটাক মিডিয়ার খোঁজ রাখেন। তারা প্রায় সবাই অবগত, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক করেছেন এই অভিনেতা। জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপি করিম বুয়েট থেকে স্থাপত্যবিদ্যায় স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। এটাও কারও অজানা নয়। একটা সময় পর্যন্ত তারকাদের শিক্ষাগত যোগ্যতার নিয়মিত খোঁজ মিলত। প্রায় সব তারকার শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে সাধারণরা ছিল অবগত। কিন্তু বর্তমানে লুকোছাপাটা যেন একটু বেশিই হচ্ছে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা কমবেশি সেটা মুখ্য নয়। পৃথিবীর অনেক গুণী শিল্পী আছেন যারা বেশি দূর পড়েননি। পড়াশোনা এক জিনিস আর প্রয়োগ আলাদা। শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে এত লুকোচুরি কেন? অনেকেই নিজেদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে মুখ খোলেন না। তাই নানারকম মিথও প্রচলিত মিডিয়ায়।

চলচ্চিত্র: যাদের সম্পর্কে জানা গিয়েছে-

চিত্রনায়ক আলমগীরঃ চিত্রনায়ক আলমগীর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে পড়েছেন। পরবর্তীতে পাকিস্তান থেকে উচ্চতর শিক্ষা নিয়েছেন।

ইলিয়াস কাঞ্চনঃ ইলিয়াস কাঞ্চন স্নাতক সম্পন্ন।

সোহেল রানাঃ অভিনেতা ও পরিচালক সোহেল রানা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন।

নায়ক ফারুকঃ নায়ক ফারুক উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেছেন।

মিশা সওদাগরঃ খল অভিনেতা মিশা সওদাগর ব্যবস্থাপনায় পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

ফেরদৌসঃ চিত্রনায়ক ফেরদৌস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতায় পড়েছেন।

রিয়াজঃ চিত্রনায়ক রিয়াজের কলেজ জীবন শুরু হয় যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজে এইচএসসিতে ভর্তির মাধ্যমে। সেখান থেকে এইচএসসি পাস করে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীতে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ এয়ার ফোর্স একাডেমিতে ১৯৯১ সালের জুন পর্যন্ত অধ্যয়ন ও প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএসসি সম্পূর্ণ করেন।

জায়েদ খানঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করেছেন বলে দাবি করেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান।

অনন্ত জলিলঃ চিত্রনায়ক-প্রযোজক অনন্ত জলিল দাবি করেন তিনি ম্যানচেষ্টারের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক করেছেন।

জয়া আহসানঃ জয়া আহসান ব্যবস্থাপনা বিষয় নিয়ে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন ইডেন মহিলা কলেজ থেকে।

ববি হকঃ নায়িকা ববি হক আদমজী ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ শেষ করেছেন।

আঁচলঃ নায়িকা আঁচল স্ট্যামফোর্ড থেকে বিবিএ সম্পন্ন করেছেন।

রত্নাঃ নায়িকা রত্না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স শেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করেছেন।

আলিশা প্রধানঃ চিত্রনায়িকা আলিশা প্রধান ইংলিশ মিডিয়াম প্রতিষ্ঠান থেকে এ লেভেল সম্পন্ন করে অর্থনীতি পড়ছেন ইডিক্সেল-এ।

নাটক বড় পর্দা থেকে বহুগুন এগিয়ে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একঝাক তারকা পড়াশোনা করেছেন অভিনেত্রী সুবর্ণা মোস্তফা (ইংরেজি বিভাগ), রোকেয়া প্রাচী, বিজরী বরকতুল্লাহ, বন্যা মির্জা এবং গোলাম ফরিদা ছন্দা।

আজাদ আবুল কালামঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে অভিনেতা আজাদ আবুল কালাম।

তাজিন আহমেদঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনা করেছেন অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ।

মডেল ফয়সালঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাবস্থাপনা বিভাগে পড়াশোনা করেছেন মডেল ফয়সাল।

তাহসান খানঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসনে ব্যাচেলর (মার্কেটিং) ও মাস্টার্স (ফাইন্যান্স) শেষ করেন তাহসান খান। এছাড়াও তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে মাস্টার্স অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেছেন।

আফজাল হোসেনঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে পাশ করেছেন আফজাল হোসেন।

বিপাশা হায়াতঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে পাশ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিপাশা হায়াত।

চঞ্চল চৌধুরীঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে পাশ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী।

সাজু খাদেমঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে পাশ করেছেন অভিনেতা সাজু খাদেম।

আফরান নিশোঃ ধানমন্ডি সরকারি বালক বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি. পাস করেন এবং পরবর্তীকালে ঢাকা কলেজ থেকে এইচ.এস.সি. পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন।

প্রাণ রায়ঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে পাশ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা প্রাণ রায়।

সজলঃ অভিনেতা সজল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ বিভাগ থেকে সাফল্যের সঙ্গে পড়াশোনা শেষ করেছেন।

আফসানা আরা বিন্দুঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় হতে ব্যবসায় প্রশাসন বিদ্যায় স্নাতক পাশ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী আফসানা আরা বিন্দু।

শহীদুজ্জামান সেলিমঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা শহীদুজ্জামান সেলিম।

ফারুক আহমেদঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা ফারুক আহমেদ।

মাজনুন মিজানঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন অভিনেতা মাজনুন মিজান।

জাকিয়া বারী মমঃ জাকিয়া বারী মম নাট্যকলায় স্নাতক শেষ করে উচ্চতর পড়াশোনা করছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে।

সুমাইয়া শিমুঃ শিমু জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরকার ও রাজনীতিবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতকোত্তর এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নাট্যকলায় পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

সোহানা সাবাঃ সোহানা সাবা শান্ত-মারিয়ম থেকে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ে গ্র্যাজুয়েশন করেছেন।

রুনা খানঃ ইডেন মহিলা কলেজ থেকে বাংলায় অনার্স-মাস্টার্স করেছেন অভিনেত্রী রুনা খান।

রাফিয়াথ রশিদ মিথিলাঃ মিথিলা ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাষ্টার্স করেছেন।

স্বাগতাঃ স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিল্ম স্টাডিজের ওপর স্নাতক শেষ করেছেন অভিনেত্রী স্বাগতা।

জ্যোতিকা জ্যোতিঃ অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি ময়মনসিংহ আনন্দমোহন কলেজ থেকে ইংরেজিতে অনার্স করেছেন।

ঈশিতাঃ অভিনেত্রী ঈশিতা নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন।

বাঁধনঃ লাক্স সুন্দরী বাঁধন বাংলাদেশ ডেন্টাল কলেজ থেকে সাফল্যের সঙ্গে বিডিএস (গ্র্যাজুয়েশন) সম্পন্ন করেছেন।

আশনা হাবিব ভাবনাঃ অভিনেত্রী ভাবনা বাংলাদেশ লিবারেল আর্টস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস ও ইংরেজিতে স্নাতক করেছেন।

নাজনীন হাসান চুমকীঃ নাজনীন হাসান চুমকী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স শেষ করেছেন।

ঊর্মিলা শ্রাবন্তী করঃ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছেন চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে। পরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিষয়ে স্নাতক সম্পূর্ণ করেন।

তৌকীর আহমেদঃ তৌকির আহমেদ ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে এস এস সি এবং এইচএসসি সম্পন্ন করেন। ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ-এ পড়াকালীন তিনি মঞ্চ নাটকে অভিনয় শুরু করেন। তারপর তিনি স্থাপত্যে স্নাতক অর্জন করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল এবং প্রযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে। তিনি ১৯৯৫ সালে লন্ডনের রয়্যাল কোর্ট থিয়েটার থেকে মঞ্চ নাটক পরিচালনার প্রশিক্ষন নেন এবং ২০০২ সালে নিউইয়র্ক ফিল্ম অ্যাকাডেমি থেকে চলচ্চিত্রে ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন।

মোশাররফ করিমঃ স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন অভিনেতা মোশাররফ করিমও।

নাঈমঃ নাঈম নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে মাস্টার্স শেষ করেছেন।

তরুণ প্রজন্ম

অনেকেই মিডিয়ায় নিয়মিত অভিনয় করছেন। কিন্তু পড়াশোনাটা কোন এক স্তরে এসে থমকে আছে। ব্যস্ততা যেমন বেড়েছে তেমনি শিক্ষার দৌড়ে পিছিয়েছে। অনেকের নামের সঙ্গে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় থাকলেও নিয়মিত নন তারা।

মাহিয়া মাহিঃ ঢাকা উত্তরা হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক ও ঢাকা সিটি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন। বর্তমানে তিনি শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজিতে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের উপর পড়াশুনা করছেন।

মেহজাবিনঃ মেহজাবিন শান্ত-মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাশন ডিজাইনিং এর ছাত্রী ছিলেন।[২] ও লেভেলে পড়াশুনা করার সময় তিনি লাক্স সুন্দরী নির্বাচিত হন। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়।

নুসরাত ফারিয়াঃ শান্ত-মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের এআইইউবিতে বিবিএ শেষ বর্ষে অধ্যয়নরত।

পিয়া বিপাশাঃ পিয়া বিপাশা বহুদিন ধরে সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে পড়ছেন।

সাবিলা নূরঃ সাবিলা নূর নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী।

অর্চিতা স্পর্শিয়াঃ অর্চিতা স্পর্শিয়া ইউল্যাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ শেষ করেছেন।

জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়াঃ তিনি লন্ডন কলেজ অব লিগ্যাল স্টাডিস থেকে আইন বিভাগ থেকে স্নাতক শেষ করেছেন।

ফারহান আহমেদ জোভানঃ ইউনাইটেড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক করছেন।

সিয়াম আহমেদঃ জনপ্রিয় অভিনেতা সিয়াম আহমেদ ২০১০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিসাববিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হন। পরের বছর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন তিনি। পরবর্তীতে যুক্তরাজ্যে নর্থাম্ব্রিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে আইন বিষয় নিয়ে উচ্চতর ডিগ্রির জন্য লেখাপড়া করেন। তিনি বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান।

মৌসুমী হামিদঃ মাধ্যমিক বিদ্যালয় শেষ হবার পর তিনি খুলনা চলে যান ব্যবস্থাপনা শিক্ষায় পড়াশুনার জন্য এবং আজম খান কমার্স কলেজে ভর্তি হন সেখান থেকেই তিনি শিক্ষা জীবন শেষ করেন।

বিদ্যা সিনহা মিমঃ বিদ্যা সিনহা সাহা মীম তার প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে, পরে তিনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক সম্পন্ন করেন। তিনি আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশ-এ ইংরেজি বিভাগে পড়াশোনা করেছেন, যেখানে তিনি ইংরেজি সাহিত্যে ব্যাচেলর অব আর্টস (বিএ) ডিগ্রি অর্জন করেন।

বাপ্পীঃ চিত্রনায়ক বাপ্পী ইউল্যাব থেকে সাংবাদিকতা বিষয়ে পড়াশোনা করেন।

পরীমনিঃ এসএসসি পর্যন্ত বরিশালেই পড়াশোনা করেছেন। সেখান থেকেই তিনি তাঁর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ করেন। সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে বাংলা বিভাগের ছাত্রী ছিলেন।

তমা মির্জাঃ তমা মির্জার শৈশব কাটে বাগেরহাটের কচুয়ায়। সেখানে মাধ্যমিক পাশ করার পর ঢাকায় এসে সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে ভর্তি হন ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। উচ্চমাধ্যমিকে পাশ করার পর মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেন

অগোচরে যাদের শিক্ষাজীবন :

চিত্রনায়িকা মৌসুমীর শিক্ষাজীবন কখনো প্রকাশ্যে আসেনি। জানা যায়নি শাবনুরের শিক্ষা জীবনেরও কোনও খবর। চিত্রনায়ক শাকিব খানের শিক্ষাগত যোগ্যতাও সঠিকভাবে কেউ জানে না। রটে আছে তিনি উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন। তবে তিনি প্রকৌশলী হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। বিভিন্ন সময়ে সে গল্প শোনা যায়। অপু বিশ্বাস মাধ্যমিক পাসের পরই পড়াশোনাকে সম্ভবত বিদায় জানান।

সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। সিমলার পড়াশোনাও নাকি আটকে গেছে ইন্টার দ্বিতীয় বর্ষ থেকে। এছাড়া পূর্ণিমা, পপি, বর্ষা, সিমলা, সায়মনসহ অনেক নায়ক-নায়িকাদের শিক্ষাজীবন নিয়ে পরিষ্কার কোনও তথ্য জানা সম্ভব হয়নি। আরেফিন শুভ ময়মনসিংহে জীবনের অনেকটা সময় ছিলেন। সেখানে কতদূর পড়াশোনা করেছেন তা ঠিক জানা যায়নি। এছাড়া নায়ক ইমন ও নীরবের সঠিক তথ্যও জানা সম্ভব হয়নি।