সামগ্রিক সুরক্ষাই করোনা প্রতিরোধের উপায়

hand wash

মহামারী করোনা ভাইরাসের এখন পর্যন্ত কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কৃত হয়নি। তাই এ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সাবান দিয়ে বারবার হাত ধোয়া, হাঁচি-কাশি দেয়ার সময় টিস্যু বা রুমাল দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে নেওয়া, পারতপক্ষে হাত দিয়ে নাক, মুখ ও চোখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর বিস্তাররোধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দেশব্যাপী সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে এবং মানুষকে নিজেদের বাসায় অবস্থান করার নির্দেশ দেয়। পরবর্তীতে, সার্বিক কার্যক্রম চালু রাখতে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদান করে কর্তৃপক্ষ। তাই, বর্তমানে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মেনে শর্তসাপেক্ষে বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও অফিস পুনরায় তাদের কার্যক্রম চালু করেছে।

এ পরিস্থিতিতে অনেকে জরুরি প্রয়োজনে বাসার বাইরে বের হচ্ছেন, অফিসে যাচ্ছেন এবং কাজ শেষে আবার বাসায় ফিরছেন। করোনাকালে এ সময় ব্যক্তিগত সুরক্ষার পাশাপাশি সামগ্রিক সুরক্ষার বিষয়টিও সমান গুরুত্বপূর্ণ। কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ব্যক্তিগত সুরক্ষার অংশ হিসেবে আমরা বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছি, কিন্তু সামগ্রিক সুরক্ষার বিষয়ে আমরা সঠিক নজর দিচ্ছি কী? অর্থাৎ বাসা, অফিস, ব্যাংক ও সুপারস্টোর সহ অন্যান্য জনসমাগমপূর্ণ অবকাঠামোতে প্রতিদিনের ব্যবহার্য উপকরণ কিংবা মেঝে বা দেয়াল জীবাণুমুক্ত করার বিষয়টি কী আমরা ভাবছি? কারণ, ডব্লিউএইচও’র দেয়া তথ্য মতে, কোভিড-১৯ যেকোনো পৃষ্ঠে দুই ঘণ্টা থেকে নয় দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। তাই, কোভিড সংক্রমণ রোধে বাসা, অফিস, সুপারস্টোর ব্যাংক সহ অন্যান্য অবকাঠামোর দেয়াল, মেঝে এবং অন্যান্য পৃষ্ঠতল জীবাণুমুক্ত করা জরুরিও।

এ পরিস্থিতিতে মানুষের ব্যক্তিগত ও সামগ্রিক সুরক্ষার বিষয়গুলোকে প্রাধান্য দিয়ে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ জীবাণুনাশক সেবা চালু করেছে। ডব্লিউএইচও এবং রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) বৈশ্বিক মানদণ্ড অনুসরণ করে প্রতিষ্ঠানটির ‘বার্জার এক্সপার্ট স্যানিটাইজেশন সার্ভিস’নামের এ সেবা প্রদান করবে বার্জার এক্সপেরিয়েন্স জোনের প্রশিক্ষিত ও পেশাদার সদস্যরা।

বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের নতুন এ জীবাণুনাশক সমাধানটির বিশেষ বৈশিষ্ট্যগুলো হচ্ছে, এটি পরিবেশবান্ধব এবং এতে কোনো বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য নেই বলে এটি খাবারকেও সুরক্ষিত রাখবে এবং চোখ ও চামড়ারও ক্ষতি করবে না। এছাড়াও, এ জীবাণুনাশক সমাধানটি সকল বস্তুতেই স্প্রে করা যাবে। এমনকি কাপড়েও এটি স্প্রে করা যাবে, যা নিঃসন্দেহে একটি ইতিবাচক দিক। সর্বোপরি, প্রতিষ্ঠানটির নতুন এ জীবাণুনাশক সমাধানটি মানুষ ও প্রাণির জন্য ক্ষতিকর নয় এবং এটি ৯৯.৯৯ শতাংশ ভাইরাস ও জীবাণুনাশ করতে পারবে।

এ নিয়ে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) একেএম সাদেক নাওয়াজ বলেন, ‘বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও অফিস পুনরায় তাদের কার্যক্রম চালু করছে। এ পরিস্থিতিতে, কর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা কর্তৃপক্ষের প্রধান দায়িত্ব। আমাদের প্রত্যাশা, বর্তমান পরিস্থিতিতে কোভিড-১৯ ভাইরাস প্রতিরোধে বার্জার পেইন্টসের নতুন এ সমাধানটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করবে। ’

এ সঙ্কটকালীন সময়ে ব্যক্তিগত সুরক্ষার পাশাপাশি আমাদের সামগ্রিক সুরক্ষার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে। সামগ্রিক সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারলে আমরা কোভিডসহ অন্যান্য রোগ থেকেও নিজেদের এবং প্রিয়জনদের সুরক্ষিত রাখতে পারবো। বার্জার এক্সপেরিয়েন্স জোনের (কলসেন্টার, ফেসবুক পেজ, ওয়েবসাইট ও আউটলেট) মাধ্যমে এ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন আগ্রহীরা।