বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের প্রশংসায় মালয়েশিয়ার সিনিয়র মন্ত্রী

ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বিশ্বে এক উদীয়মান অর্থনীতিতে পরিণত হয়েছে। মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র মন্ত্রী দাতু সেরি মোহাম্মদ আজমিন আলীর সঙ্গে ৫ জানুয়ারি সদ্যনিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ারের সৌজন্য সাক্ষাতকালে মালয়েশিয়ার মন্ত্রী এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

এই সভায় মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। ভ্রাতৃপ্রতিম বন্ধুরাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্ক জোরদারে তিনি আগ্রহ প্রকাশ করেন। বাংলাদেশকে তিনি দক্ষিণ এশিয়ায় মালয়েশিয়ার বিশ্বস্ত সহযোগী হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, বাণিজ্যিক সম্পর্ক সুদৃঢ় করার মাধ্যমে উভয় দেশ তাদের ব্যবসা ও বাণিজ্যে সমৃদ্ধি অর্জন করতে পারে।

বাংলাদেশের হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ার বাংলাদেশের অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন মালয়েশিয়ার মন্ত্রীর নিকট। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ সঠিক পথে এগিয়ে চলছে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও বৈদেশিক বিনিয়োগ দ্রুত প্রসার লাভ করছে। বাংলাদেশের রপ্তানি পণ্য, বিশেষ করে তৈরি পোশাক, সিরামিকস, ফুট ওয়্যার, ফার্মাসিউটিক্যালস এর সুখ্যাতি বিশ্বজুড়ে। তিনি পণ্যমূল্য ও গুনগত মান বিবেচনায় বাংলাদেশ থেকে অধিক পণ্য আমদানির আহ্বান জানান।

তিনি বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করার লক্ষে সরকার গৃহীত নানা কর্মসূচি বিশদভাবে তুলে ধরেন। তিনি সরকারি উদ্যোগে বাস্তবায়িত সমগ্র বাংলাদেশে ১০০ ইকনোমিক জোন স্থাপনের বিষয়ে মালয়েশিয়ার মন্ত্রীকে অবহিত করেন। আর তিনি মালয়েশিয়ার বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন। ভারত, জাপান, চীন, ও দক্ষিণ কোরিয়ার মত মালয়েশিয়াকেও বাংলাদেশে একটি বিশেষ ইকনোমিক জোন স্থাপনের অনুরোধ জানান।

হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ার দু’দেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) স্বাক্ষরে বাংলাদেশের ইতিবাচক অবস্থান তুলে ধরে। মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রীকে এফটিএ নেগোসিয়েশন শুরু করার অনুরোধ করলে মালয়েশীয়মন্ত্রী নেগোসিয়েশন কার্যক্রম দ্রুত শুরু করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

বাংলাদেশের হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ার অব্যাহত সহযোগিতার জন্য মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
সৌজন্য সাক্ষাৎকালে দূতাবাসের ডেপুটি হাইকমিশনার মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খাস্তগীর ও কাউন্সিলর (কমার্শিয়াল) রাজিবুল আহসান এবং মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল ও অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বাংলাদেশের হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ার মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল অ্যাম্বাসেডর মোহাম্মদ আজহার মাজলিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। আর এ সময় তারা বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন দিক, বিশেষ করে অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিকদের বৈধ হওয়ার সুযোগ সংক্রান্ত চলমান রিক্যালিব্রেশন প্রোগ্রাম, কোভিডের কারণে বাংলাদেশে আটকে পড়া শ্রমিকদের ফেরত আসা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মালয়েশিয়ার অব্যাহত সমর্থন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।