ভারতে ৩.৭ লাখ কোটি টাকার মোবাইল বানাবে স্যামসাং

Samsung

বড় পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান স্যামসাং। আগামী ৫ বছরের মধ্যে ভারতে ৩.৭ লাখ কোটি টাকার মোবাইল ফোন তৈরির প্রস্তুতি নিচ্ছে এই টেক জায়ান্ট। ভারত সরকারের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এ তথ্য দেয়া হয়। আইটি এবং ইলেক্ট্রনিকস মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ইতোমধ্যে এই বিষয়ে আলোচনা শুরু করে দিয়েছেন স্যামসাং।

এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মহল থেকে জানা গেছে, স্যামসাং ১৫ হাজার টাকা বা তার বেশি দামের মোবাইল তৈরি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং এই খাতে খরচ করবে ২.২ লাখ কোটি টাকা। প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেনটিভ স্কিমের অধীনে এই প্রকল্প শুরু করা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সরকারি কর্মকর্তা সংবাদসংস্থা পিটিআই-কে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে জানিয়েছেন, আগামী পাঁচ বছরে ৩.৭ লাখ কোটি টাকার মোবাইল ফোন বানানোর পরিকল্পনা রয়েছে স্যামসাংয়ের। এর মধ্যে ২.২ লাখ কোটি টাকার মোবাইল ফোন তৈরি হবে পিএলআই প্রকল্পের অধীনে। তবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি মোবাইল নির্মাতা।

তবে শুধু স্যামসাং-ই নয়, প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেনটিভ স্কিমের অধীনে মোবাইল প্রস্তুত করার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছে বেশ কিছু বিদেশি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে রয়েছে উইস্ট্রন, পেগাট্রন, ফক্সকন এবং হন হাই। পিছিয়ে নেই ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোও। আবেদন করেছে লাভা, মাইক্রোম্যাক্স, পেজেট ইলেক্ট্রনিকস, সোজো, ইউটিএল এবং অপ্টিএমাস।

ভারত সরকারের ধারণা, আগামী ৫ বছরে ভারতেই তৈরি হবে ১১ লাখ কোটি টাকার মোবাইল ফোন। ইন্ডিয়া সেলুলার অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিকস অ্যাসোসিয়েশনের ধারণা, পিএলআই স্কিমের অধীনে ভারতে স্মার্টফোন তৈরি বাড়বে প্রায় ২৭.৫ লাখ কোটি টাকা। এই মুহূর্তে দেশে প্রতি বছর মোবাইল তৈরি হয় প্রায় ২ লাখ কোটি টাকার। এই ক্ষেত্রে কাজ করেন প্রায় ৫ থেকে ৬ লাখ কর্মী। এই ক্ষেত্রে প্রায় ১ লাখ কোটি টাকার বিনিয়োগের আশা রাখছে কেন্দ্রীয় সরকার। ২০২৫ সালের মধ্যে ম্যানুফ্যাকচারিং রেভিনিউ আসার সম্ভাবনা রয়েছে ১০ লাখ কোটি টাকার।

ভারত সরকারের মেক ইন ইন্ডিয়া উদ্যোগে সামিল হতে ইচ্ছুক স্যামসাং ইতোমধ্যে বিশ্বের বৃহত্তম মোবাইল ফোন তৈরির কারখানা শুরু করেছে উত্তর প্রদেশে। বছরে এখান থেকে ১২ কোটি মোবাইল ফোন তৈরি হয়।
: এই সময়