তৃণমূল কংগ্রেসের তারকা প্রার্থীদের জয়জয়কার, গ্লানি বিজেপির তারকাদের

Trinamool Star candidate

বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বাধিক জনবহুল এবং পৃথিবীর বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে বিজয়ী তারকা প্রার্থীর বহর এবার আরও বড় করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে বিজেপির তারকা প্রার্থীদের একজন বাদে সকলেই পরাজিত, সেখানে তৃণমূলের তারকা প্রার্থীদের একজন বাদে সকলেই বিজয়ী।

এবার তারকা প্রার্থীর ছড়াছড়ি ছিল দুই বড় দলেই। তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির হয়ে অনেক প্রার্থীই ভোট করেন। কেউ তৃণমূল ছড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। আবার কেউ তৃণমূলে থেকেই ভোটে অংশ নেন। তবে তৃণমূলের তারকা প্রার্থীদের জয়জয়কার হয়েছে।

তৃণমূলের বিজয়ী তারকারা

চিরঞ্জিত চক্রবর্তী: পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে বারাসাত কেন্দ্র থেকে পর পর তিনবার জয়ী হয়ে হ্যাট্রিক করলেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ও তৃণমূল প্রার্থী চিরঞ্জিত চক্রবর্তী। ২৩ হাজারেরও বেশি ভোটে জয়ী হয়েছেন এই তারকা প্রার্থী। চিরঞ্জিত এখন বারাসাত বিধানসভা আসনের তৃণমূলের বিধায়ক বা এমএলএ।

রাজ চক্রবর্তী: পরিচালক রাজ চক্রবর্তী তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে উত্তর চব্বিশ পরগণার বারাকপুরে এগিয়ে আছেন। ভোট গণনার শুরু পর থেকেই তার অবস্থান ভালো বলে জানা গেছে।

সোহম চক্রবর্তী: চণ্ডীপুর আসনে তৃণমূলের হয়ে জয়ী হয়েছেন অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী। তবে পায়েল সরকারের আসনে চূড়ান্ত ফল পাওয়া যায়নি।

জুন মালিয়া: টালিউড অভিনেত্রী জুন মালিয়া গত মার্চে তৃণমূলে যোগ দেন। রাজনীতিতে নাম লেখিয়ে মেদেনিপুর আসন থেকে নির্বাচনে অংশ নেন এই অভিনেত্রী। আর বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরলেন জুন মালিয়া। এতে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিজেপির সমিত কুমার দাস।

লাভলী মৈত্র: টেলিভিশন অভিনেত্রী লাভলী মৈত্র সোনারপুর দক্ষিণ আসন থেকে বিজয়ী হয়েছেন। এতে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিজেপির অঞ্জনা বসু।

কাঞ্চন মল্লিক: টালিউডের কমেডিয়ান কাঞ্চন মল্লিক প্রথমবার রাজনীতিতে নাম লেখিয়েছেন। আর তৃণমূলে যোগ দিয়েই উত্তরপাড়ার টিকিট পেয়ে যান তিনি। সর্বশেষ বিজেপি প্রার্থী প্রাবাল ঘোষলকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছেন এই অভিনেতা।

অদিতি মুন্সি: রাজারহাট গোপালপুর বিধানসভা নির্বাচনে প্রথমবার ভোটে দাঁড়িয়ে জিতলেন তৃণমূল কংগ্রেসের তারকা প্রার্থী অদিতি মুন্সি। এই আসনে বিজেপির প্রার্থী ছিলেন শমীক ভট্টাচার্য। অন্যদিকে, বাম-কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (আইএসএফ) তরফে এই কেন্দ্রে দাঁড়িয়েছেন সিপিআইএমের শুভজিৎ দাশগুপ্ত।

বিজেপির পরাজিত তারকারা

পায়েল সরকার : বেহালা পূর্বতে তৃণমূলের প্রার্থী রত্না চ্যাটার্জির সঙ্গে হেরেছেন বিজেপির প্রার্থী টালিউড অভিনেত্রী পায়েল সরকার। রবিবার ভোটের ফলাফলে দেখা গেছে, তৃণমূলের প্রার্থী ১৩ হাজার ৯৭৭ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ১২ হাজার ৬৪০ ভোট। এছাড়া চুঁচুড়ায় বিধানসভার ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী অজিত মজুমদারের সঙ্গে হেরে গিয়েছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। ৫৭ হাজার ৮৯১ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী। অন্যদিকে লকেট চট্টোপাধ্যায় পেয়েছেন ৫৪ হাজার ৮২৯ ভোট।

লকেট চট্টোপাধ্যায় : চুঁচুড়ায় বিধানসভার ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী অজিত মজুমদারের সঙ্গে হেরে গেছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। রবিবার ভোটের ফলাফলে দেখা গেছে, ৫৭ হাজার ৮৯১ ভোট। অন্যদিকে লকেট চট্টোপাধ্যায় পেয়েছেন ৫৪ হাজার ৮২৯ ভোট। লকেট তার রাজনৈতিক জীবনের শুরুর দিকে তৃণমূলে ছিলেন পরে বিজেপিতে যোগ দেন।

যশ দাশগুপ্ত : স্বাতী খন্দকার, আগেও দু’বার বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন। এবার তৃতীয়বারেও চণ্ডীতলায় জয়ের ধারা বজায় রাখলেন। তার বিপুল জয়ে হারলেন সিপিএমের হেভিওয়েট প্রার্থী মুহাম্মাদ সেলিম ও বিজেপির অভিনেতা প্রার্থী যশ দাশগুপ্ত। ভোট গণনার শুরু থেকেই যশ অনেক পিছিয়ে ছিলেন বলে জানা যায়। শেষে তিনি হেরেই যান।

রুদ্রনীল ঘোষ : ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে এবার বিজেপির প্রার্থী হয়ে বেশ আলোচনায় ছিলেন। তবে তৃণমূলের শক্তিশালী প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের কাছে বিপুল ভোটে হেরে গেছেন বিজেপির এই তারকা প্রার্থী। আজ ফল গণনার শুরু থেকেই পিছিয়ে ছিলেন রুদ্রনীল। উল্লেখ্য, বিজেপিতে যোগ দিয়ে সতীর্থদের সমালোচনার মুখে পড়েন এই অভিনেতা। এর আগে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। দল পাল্টেই গরম সুরে কথা বলা শুরু করেন। যা নিয়ে তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়।

শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় : শ্রাবন্তী নির্বাচনে লজ্জাজনকভাবে বিশাল ব্যবধানে হেরে গেছেন। রবিবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর চেয়ে ১৫ হাজারেরও বেশি ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েছেন বিজেপির এ অভিনেত্রী। অথচ নির্বাচনী প্রচারণায় শ্রাবন্তী প্রকাশ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে নানাভাবে কটাক্ষ করেছিলেন।

তৃণমূলের একমাত্র পরাজিত তারকা

সায়নী ঘোষ : আসানসোল দক্ষিণের তৃণমূলের প্রার্থী অভিনেত্রী সায়নী ঘোষকে পরাজিত করে বিধানসভায় যাচ্ছেন বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল। দুই সেলেব প্রার্থীর লড়াইয়ে এই কেন্দ্র এবার হয়ে উঠেছিল নজরকাড়া। তৃণমূল যখন বিজেপি নেতাদের বহিরাগত বলে আক্রমণ শোনাচ্ছিল তখন অগ্নিমিত্রা বলেছিলেন, আসানসোলের মাটিতে সায়নীও বহিরাগত। আর তিনিই ভূমিকন্যা।

বিজেপির একমাত্র জয়ী তারকা

হিরণ: খড়়গপুর সদর কেন্দ্র থেকে জিতলেন বিজেপির তারকা প্রার্থী অভিনেতা হিরণ। যেখানে বিজেপির অন্য তারকা প্রার্থীদের প্রায় সবাই হেরেছেন সেখানে তার এই জয় খানিকটা স্বস্তি এনে দিয়েছে পদ্ম শিবিরে।