২০০৯ সালে ধর্ষণের অভিযোগ, রোনালদোর কাছে ৬০০ কোটি টাকা দাবি সেই নারীর!

রোনালদো ও মায়োরগা - ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

পুর্তগালের তারকা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে দুই বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মডেল ক্যাথরিন মায়োরগা ধর্ষণের অভিযোগ এনেছিলেন। প্রমাণের অভাবে ওই সময় মামলাটি তুলে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সম্প্রতি সেই নারী আবারও পর্তুগিজ সুপারস্টারের কাছে বিশাল অংকের টাকা দাবি করে বসলেন। দাবিকৃত সেই অর্থের পরিমাণ প্রায় ৬৫ মিলিয়ন ইউরো, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬৬৫ কোটি টাকা!

মায়োরগার আইনজীবী লেসলি স্টোভালে জানিয়েছেন, মায়োরগা ২০০৯ সালে জুনে লাস ভেগাসের পাম ক্যাসিনো রিসোর্টে ধর্ষণের শিকার হন। রোনালদো জোরপূর্বক বিকৃত যৌনমিলন করেন তার সঙ্গে। বিকৃত যৌনমিলন এর ১০ বছর পর মামলা করেন মায়োরগা। সেই মামলা বাতিল হয়।

তবে আইনজীবী লেসলি স্টোভালের দাবি, রোনালদো ও মায়োরগা নাকি সেই সময় মৌখিকভাবেই ব্যাপারটা চুকিয়ে ফেলেছিলেন। সেইসঙ্গে মায়োরগার মুখ বন্ধ রাখতে তখন ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলার দিয়েছিলেন রোনালদো।

এবার ৩৭ বছর বয়সী মায়োরগা সেই ঘটনায় ‘অতীত-ভবিষ্যতের হয়রানি’ এবং ‘যন্ত্রণার ক্ষতিপূরণ’ হিসেবে দাবি করেছেন ৪১.৫ মিলিয়ন ইউরো। এর পাশাপাশি আরও ২০.৫ মিলিয়ন ইউরো দাবি করেছেন দণ্ডমূলক ক্ষতিপূরণ হিসেবে।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এর আগে ২০১৮ সালে টুইটারে সব অস্বীকার করে লিখেন, ‘ধর্ষণ হিসেবে যেসব অভিযোগ তোলা হয়েছে আমার বিরুদ্ধে, সেসব দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করছি। এসব ঘৃণ্য অপরাধ আমার বিশ্বাসের সঙ্গে যায় না। কেউ আমাকে ব্যবহার করে সংবাদমাধ্যমে নিজের কার্যসিদ্ধি করতে পারবে না।’