এন-৯৫ মাস্ক কেলেঙ্কারি: জেএমআই গ্রুপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে রিট

High Court

সুরক্ষা সরঞ্জাম এন-৯৫ মাস্ক কেলেঙ্কারির ঘটনায় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান জেএমআই গ্রুপের বিরুদ্ধে অবিলম্বে যথাযথ ব্যবস্থা ও ঘটনা তদন্তে একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠনের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ মে) ই-মেইলযোগে বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিট জমা দেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মো. হুমায়ুন কবির।

পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত অথবা সন্দেহভাজন রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্যদের সুরক্ষা নিশ্চিতের লক্ষ্যে এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের জন্য জেএমআই গ্রুপের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় সরকার। তার পরিপ্রেক্ষিতে জেএমআই গ্রুপ ‘এন-৯৫ মাস্ক’ সরবরাহ করে। কিন্তু, পরবর্তী সময়ে দেখা যায়, প্রকৃতপক্ষে সেগুলো এন-৯৫ মাস্ক নয়। ওই মাস্কের কথা বলে সাধারণ মাস্ক সাপ্লাই দেওয়া হয়েছে। জেএমআই গ্রুপ তা স্বীকার করেছে।

‘কিন্তু এখন পর্যন্ত এ ধরনের প্রতারণার ও অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। বিষয়টি অত্যন্ত জরুরি এবং গুরুত্বপূর্ণ জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিধায় জেএমআই গ্রুপের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি এবং এর সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি, তথা জেএমআই গ্রুপের মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট সাপ্লাই এবং ম্যানুফ্যাকচারিং লাইসেন্স সাসপেন্ড করা এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট পিটিশন করা হয়েছে।’

রিট আবেদনে স্বাস্থ্য সচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, আইইডিসিআর-এর পরিচালক, সিএমএসডি-এর পরিচালক এবং জেএমআই গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আব্দুর রাজ্জাককে বিবাদী করা হয়েছে।