স্থগিত থাকছে লতিফ সিদ্দিকীর মামলা

Abdul Latif Siddiqui

সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী এবং বঙ্গবীর আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের করা মামলার ওপর হাইকোর্টের দেওয়া স্থগিতাদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। তবে এ বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রুল ছয় মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ভার্চ্যুয়াল আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভগ। তবে আপিল বিভাগের আদেশ পাওয়ার ছয় মাসের মধ্যে এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করতে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর আবেদনের শুনানি নিয়ে চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি বগুড়ায় দুদকের দায়ের করা মামলা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছিলেন হাইকোর্ট। ওইদিন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানিয়েছিলেন, এ মামলায় আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগ গঠন করা হয়। মামলাটি বর্তমানে সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে রয়েছে। এ অবস্থায় তারা অভিযোগ গঠনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করেন। আদালত ছয় মাসের জন্য মামলাটি স্থগিত করেছেন।

এরপর দুদক আপিল বিভাগে আবেদন করে। ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে আদমদীঘি থানায় পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দু’জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

মামলার অপর আসামি হলেন- ওই জমির ক্রেতা বগুড়া শহরের কাটনারপাড়ার মৃত হারুন-অর-রশিদের স্ত্রী জাহানারা রশিদ।